Home জাতীয় হাইআতুল উলয়ার বৈঠকে ঐক্যবদ্ধ থাকার উপর গুরুত্বারোপ

হাইআতুল উলয়ার বৈঠকে ঐক্যবদ্ধ থাকার উপর গুরুত্বারোপ

0
SHARE

কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থার দাওরায়ে হাদীসের শিক্ষা ও পরিক্ষা পরিচালনার জন্য গঠিত সম্মিলিত বোর্ড আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ-এর খসড়া আইন চূড়ান্ত এবং কয়েকটি অমীমাংসিত বিষয় সমাধানে আসার জন্য বৈঠকে মিলিত হন বোর্ডের কর্মকর্তারা। উম্মুল মাদারিসখ্যাত চট্টগ্রামের দারুল উলূম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসায় আজ (৬ নভেম্বর) সকাল ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত সাড়ে ৩ ঘণ্টা স্থায়ী এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেছেন হাইআতুল উলয়া ও বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার সভাপতি শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

বৈঠকে শরীক ছিলেন, হাইআতুল উলয়া’র কো-চেয়ারম্যান আল্লামা আশরাফ আলী, সদস্য আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, মুফতী মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা মুহাম্মাদ নূরুল ইসলাম, মুফতী রুহুল আমীন, মাওলানা শামসুল হক, মুফতী শাসমুদ্দীন জিয়া, মাওলানা আব্দুল বাসীর, মাওলানা আরশাদ রাহমানী, মুফতী নূরুল আমীন, মাওলানা সাজিদুর রহমান, মাওলানা মুফতী ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা আবদুর রহমান হাফেজ্জী, মাওলানা মুফতী জসীমুদ্দীন, মাওলানা মাহমুদুল আলম, মাওলানা মোহাম্মাদ আলী, মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমূদ, মাওলানা আব্দুল হামীদ, মাওলানা উবায়দুর রহমান মাহবুব, মাওলানা মোস্তাক আহমদ, মাওলানা নূরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা এনামুল হক, মাওলানা আবদুল জব্বার জেহাদী, মাওলানা আনাস মাদানী ও মাওলানা মুসলিহ উদ্দীন রাজু।

বৈঠকে হাইআতুল উলয়া লিল-জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ-এর প্রস্তাবিত খসড়া আইনসহ কয়েকটি অমীমাংসিত বিষয়ে বিস্তারিত খোলামেলা আলোচনা-পর্যালোচনা ও সকলের মতামত নেওয়া হয়। বৈঠক সূত্রে জানা যায়, কওমি মাদরাসার সরকারি স্বীকৃতি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নয়, বরং হাইআতুল উলয়ার আধীনেই গ্রহণের বিষয়ে সকলেই ঐক্যমত পোষণ করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে বলা হয় যে, হাইআতুল উলয়া প্রণীত আইনের আওতায় দাওরায়ে হাদীস উত্তীর্ণ ছাত্রদেরকে সরকার স্বীকৃত মাস্টার্সের সমমানের সনদ দেওয়া হবে।

বৈঠকে ইতিপূর্বে হাইয়াতুল উলয়ার কো-চেয়ারম্যান-২ রাখার যে প্রস্তাব এসেছিল, সেই বিষয়ে এখনি সকলে একমত হতে না পারায় প্রস্তাবটি স্থগিত রাখা হয়। এ পর্যায়ে বোর্ডের সভাপতি শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী পূর্বের ৩২ সদস্যের কমিটিই বহাল রেখে এই মুহূর্তে এই কমিটিতে কোন পরিবর্তনের প্রয়োজন নেই বলে অভিমত দেন। ৩২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ও ১৫ সদস্যের বিশেষ কমিটিও অপরিবির্তিত থাকবে। মূলতঃ আজকের বৈঠকে যেসব বিষয়ে কিছু কিছু বিতর্ক তৈরি হচ্ছিল, সেসব বিষয়ের মতানৈক্যে না জড়িয়ে পূর্বের সিদ্ধান্তে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, হাইয়াতুল উলয়ার সভাপতি আল্লামা শাহ আহমদ শফী সকল বিষয়ে মতৈক্য প্রতিষ্ঠা হওয়ায় গভীর সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। তিনি উপস্থিত বোর্ড কর্মকর্তা ও সদস্যদেরকে মিলে মিশে ঐক্যমতের ভিত্তিতে কাজ করার প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন, উলামায়ে কেরামের ঐক্য ফাটল ধরানোর জন্য নানা জায়গা থেকে নানা কায়দায় ষড়যন্ত্র করা হবে। আপনারা সকলে সতর্কতার সাথে চলবেন এবং ঐক্যের উপর অটল থাকলে আমাদের দীর্ঘ দিনের কাঙ্খিত কওমী মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদীসের সনদের সরকারী মান অর্জন সহজতর হবে।

আল্লামা শাহ আহমদ শফী আরো বলেছেন, দারুল উলূম দেওবন্দের মূলনীতি ও আদর্শ এবং কওমী মাদরাসার স্বাধীন ব্যবস্থাপনা, স্বকীয়তা এবং শিক্ষা পরিচালনায় স্বাতন্ত্রবোধ অক্ষুন্ন রেখেই আলেম-উলামা ও মানবতার কল্যাণ সাধন করা সম্ভব। কারণ, রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ঐক্য ও জামাতবদ্ধ থাকার মাঝেই আল্লাহ গায়েবী মদদ নিহিত থাকে। তিনি আরো বলেছেন, হযরত উমর (রাযি.) বলেছেন, জামাতবদ্ধ হওয়া ছাড়া ইসলাম কায়েম সম্ভব নয়। রাষ্ট্রের নেতৃত্ব জামাত ছাড়া অসম্ভ। আর আনুগত্য ছাড়া অধিনায়কত্ব মূল্যহীন। বৈঠকের শেষ পর্যায়ে আল্লামা শাহ আহমদ শফী দীর্ঘ মুনাজাত পরিচালনা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here