Home রাজনীতি জমিয়তের নামে কথিত কনভেনশন সম্পূর্ণ অবৈধ ও অসাংবিধানিক: জমিয়ত সভাপতি

জমিয়তের নামে কথিত কনভেনশন সম্পূর্ণ অবৈধ ও অসাংবিধানিক: জমিয়ত সভাপতি

0

আজ জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জমিয়তের নামে যেই কনভেশন হয়েছে, সেটাকে সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক ও অবৈধ উল্লেখ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সভাপতি আল্লামা আব্দুল মু’মিন শায়েখে ইমামবাড়ী। তিনি বলেন, অবৈধ এই কনভেনশনের সাথে বাংলাদেশের হক্কানী উলামায়ে কেরামের ঐতিহ্যবাহী প্রাণের সংগঠন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের ন্যুনতমও কোন সম্পর্ক নেই। এই কনভেনশন ও তার ঘোষিত যাবতীয় সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক, অবৈধ ও বিভ্রান্তিকর। আজ বৃহস্পতিবার প্রদত্ত এক বিবৃতে তিনি এসব কথা বলেন।

বিবৃতিতে জমিয়ত সভাপতি আল্লামা আব্দুল মু’মিন আরো বলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক নিবন্ধিত একটি ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল। নির্বাচন কমিশনে এই দলের নিবন্ধন নম্বর হচ্ছে ২৩ এবং দলের সভাপতি হচ্ছি- আমি আব্দুল মুমিন এবং মহাসচিব হচ্ছেন- আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী। দলের শক্তিশালী মজলিশে শূরা ছাড়াও ১০১ সদস্য বিশিষ্ট আমেলা তথা কার্যকরী কমিটি রয়েছে। এছাড়াও জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একটি দলীয় সংবিধান ও গঠনতন্ত্র রয়েছে।

বিবৃতিতে আল্লামা আব্দুল মু’মিন শায়েখে ইমামবাড়ী আরো বলেন, জমিয়তের গঠনতন্ত্রের আলোকে কোন শূরা ও আমেলা বৈঠক, কিংবা দলের মজলিশে উমুমী তথা কেন্দ্রীয় সভা-সমাবেশ ও কনভেনশন আহবানের অধিকার পদাধিকার বলে কেবল আমারই রয়েছে। অথবা আমার অনুমোদন ক্রমে একমাত্র দলের মহাসচিব এ ধরণের বৈঠক বা সমাবেশ ডাকার বৈধ অধিকার রাখেন। আমি কিংবা মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী ছাড়া জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কোন শূরা ও আমেলা বৈঠক, কিংবা দলের মজলিশে উমুমী তথা কেন্দ্রীয় সভা-সমাবেশ ও কনভেনশন আহবানের অধিকার অন্য কারোরই নেই। এ ধরনের তৎপরতা কেউ চালালে সেটা অবৈধ, অসাংবিধানিক এবং সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

জমিয়ত সভাপতি বলেন, আমি এবং আমার দলের মহাসচিব, এমনকি মজলিশে আমেলার অবগতি ছাড়া প্রাথমিক সদস্যপদসহ দল থেকে স্থায়ীভাবে সম্পূর্ণ বহিষ্কৃত নেতা মুফতী মুহাম্মদ ওয়াক্কাস এবং দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী অপতৎপরতায় জড়িত থাকার অভিযোগে শোকজপ্রাপ্ত সহসভাপতি মাওলানা মনসূর হাসান রায়পুরী ও শোকজপ্রাপ্ত যুগ্মমহাসচিব মাওলানা শেখ মুজিবুর রহমান জমিয়তের নামে কোনরূপ কনভেনশন আহবানের বৈধ অধিকারই রাখেন না। সুতরাং আজ জাতীয় প্রেসক্লাবের বেআইনি ও অবৈধ এই কনভেনশনের ঘোষিত কমিটির ব্যাপারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য জমিয়তের সকল নেতা-কর্মীসহ দেশবাসীর প্রতি আমি আহবান জানান।

তিনি আরো বলেন, শুনলাম- এই অবৈধ কনভেনশনের ঘোষিত কমিটিতে আমাকে প্রধান উপদেষ্টা করা হয়েছে। যা আমার সাথে ধৃষ্টতা ও নিরেট তামাশা ছাড়া অন্য কিছু নয়। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, আজকের এই অবৈধ কনভেনশনের আয়োজনকারীরা অবশ্যই বিপথগামী ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী। এরা প্রবৃত্তি দ্বারা প্ররোচিত হয়ে কাজ করছেন। ইতিহাস এদেরকে ক্ষমা করবে না। তিনি বলেন, হকপন্থী জামাতের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য পরকালে অবশ্যই এদেরকে মহান প্রভুর দরবারে কঠোর জবাবদেহী হতে হবে।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.