Home শীর্ষ সংবাদ যানজটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের যাত্রী ভোগান্তি চরমে

যানজটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের যাত্রী ভোগান্তি চরমে

0

উম্মাহ প্রতিবেদক: গত কয়েক দিন যাবত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে মাইলের পর মাইল দীর্ঘ লাগাতার যানজটে যাত্রী ভোগান্তি চরমে গিয়ে ঠেকেছে। যানবাহনের দীর্ঘ লাইন। পথ আছে কিন্তু যাওয়ার উপায় নেই। ঘণ্টার পর ঘণ্টা কখনো গাড়ীতে, কখনো গাড়ী থেকে নেমে হাটাচলা করেই সময় পার করছেন যাত্রীরা। এভাবেই যাত্রীদের যেমন মূল্যবান সময় মহাসড়কের তীব্র যানজট আটকে দিয়েছে, তেমনি নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যবাহী পরিবহনগুলোকেও নির্দিষ্ট সময়ে গন্তব্যে পৌঁছতে না পারায় আর্থিক লোকসানের মুখে পড়তে হয়েছে। সপ্তাহের বৃহস্পতি, শুক্রবা, শনি ও রবিবার যেন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক যাত্রীদের মহাভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, গত এক সপ্তাহ ধরেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের যানজট পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করছে। কুমিল্লা থেকে ঢাকা পৌঁছতে দুই ঘণ্টার যাত্রাপথ ১০-১২ ঘণ্টাতেও পৌঁছানো যাচ্ছে না। আবার ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম এবং চট্টগ্রাম থেকে যারা ঢাকায় যাচ্ছেন তাদের তো ১৫ ঘণ্টার বেশি লাগছে।

গতকাল ঢাকা, কুমিল্লা ও চট্টগ্রামের যাত্রীদের টানা ১২ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে যানজট দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। মহাসড়কের কুমিল্লা ও মেঘনার ওপারে মদনপুর থেকে প্রায় ৪০ কিলোমিটার এলাকা গতকাল ভোর থেকে যানজটে আক্রান্ত হয়ে পড়ে।

ঢাকা থেকে কুমিল্লা, নোয়াখালী, চাঁদপুরগামী পরিবহনগুলোকেও নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ৫-৬ ঘণ্টা বেশি সময় গুণতে হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিনে ও রাতে মহাসড়কে যানবাহনের অত্যধিক চাপ ছিল। আর শুক্রবার সেই চাপের পথ ধরে ভোর ৫টা থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চান্দিনা, মাধাইয়া, ইলিয়টগঞ্জ, দাউদকান্দি ও মেঘনার ওপারে সোনারগাঁও, কাঁচপুর এলাকাসহ কমপক্ষে দশ জায়গায় দীর্ঘ যানজটে পড়ে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে যাত্রীদের।

ঢাকা থেকে কুমিল্লা, নোয়াখালী, চাঁদপুর, ফেনি চট্টগামী বেশ ক’জন চালক ও যাত্রীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তারা কেউ ভোর সাড়ে ৫টা, ৬টা-৭টায় রওয়ানা হয়ে দুপুর আড়াইটায় সোনারগাঁও পর্যন্ত পৌঁছেছেন। আবার কেউ কেউ কাঁচপুরেই আটকা পড়েছেন দুপুর নাগাদ।

ঢাকা থেকে কুমিল্লাগামী রয়েলকোচের যাত্রী সঙ্গিতশিল্পী জসিম বিকেল পৌনে ৫টায় মুঠোফোনে জানান, সকাল ৭টায় কমলাপুর থেকে বাসে চড়ে বিকেল সাড়ে ৪টায় মেঘনাব্রীজের কাছাকাছি এসেও ব্রীজে ওঠা যাচ্ছেনা। বিশেষ করে গাড়ীতে থাকা মহিলা ও শিশুরা খুব কষ্টে ভুগছে। কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী আরেক যাত্রী কুমিল্লা রেসিডেণ্টসিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান জানান, সকালে রওয়ানা হয়ে দুপুর ২টায় দাউদকান্দির গৌরিপুরে আটকা পড়েছেন।

কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী বাসের বেশ ক’জন চালক জানান, মহাসড়কের কুটম্বপুর থেকে ভোরেই কুমিল্লা অংশের প্রায় ১৫ কিলোমিটার রাস্তা যানজটে আক্রান্ত। সকাল ৭টার পর থেকেই গাড়ীর গতি ধীর হয়ে পড়ে। অনেকেই জানান, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাও অংশে সংস্কার কাজ ও দাউদকান্দি টোলপ্লাজা এবং মেঘনা টোলপ্লাজায় টোল আদায়ে ধীরগতিই যানজটের মূল কারণ। এছাড়াও ভবেরচর, গজারিয়া অংশে প্রতিনিয়ত যানজট মহাসড়কের কুমিল্লা ও মেঘনার পরের অংশে প্রভাব ফেলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here