Home শীর্ষ সংবাদ ছাত্রদের কোটা সংস্কার আন্দোলন প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত স্থগিত

ছাত্রদের কোটা সংস্কার আন্দোলন প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত স্থগিত

0

কোটাপদ্ধতি বাতিল বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছে। তবে কোটাপদ্ধতি সম্পূর্ণরূপে বাতিলের যে ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সে জন্য তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তারা মাদার অব এডুকেশন উপাধি দিয়েছেন। কোটাপদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে শিক্ষার্থীরা গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিল করেছেন।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসির সামনে রাজু ভাস্কর্য চত্বরে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য। সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কোটাব্যবস্থা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করা হলো।

এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন এবং মাদার অব এডুকেশন উপাধিতে ভূষিত করে শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা দাবি পেশ করেন।

পাঁচ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ করে জনমনের সন্দেহ দূর করা, সারা দেশে গ্রেফতারকৃত আন্দোলনকারীদের নিঃশর্ত মুক্তি, আন্দোলনে পুলিশি নির্যাতনের শিকার শিার্থীদের সুচিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে সরকারের পক্ষ থেকে দ্রুত আন্দোলনকারীদের সাথে যোগাযোগের দাবি, পুলিশ ও ঢাবি প্রশাসনের দায়ের করা পাঁচটি অজ্ঞাতনামা মামলা প্রত্যাহার এবং আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী শিার্থী ও নেতাদের পরে হয়রানি না করা। আন্দোলনে অংশগ্রহণ করা শিক্ষার্থীদের হয়রানি করা হলে আবার শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে আন্দোলনে নামা হবে বলে জানান তারা।

আন্দোলনে অংশ নেয়া সব শিার্থীর যৌক্তির দাবিতে সহমত পোষণ করা সব শিক, সাংবাদিক ও বুদ্ধিজীবীদের ধন্যবাদ জানান নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়া গণমাধ্যমকেও তারা ধন্যবাদ জানান, আন্দোলনের খবর সারা দেশসহ গোটা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেয়ার জন্য।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরণ পরিষদের আহবায়ক হাসান আল মামুন সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলন স্থগিতের সিদ্ধান্ত জানান। ঘোষণার শুরুতে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করেন। এরপর কোটা বাতিলের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে সাদরে গ্রহণ করছি। তার এ সিদ্ধান্তের জন্য আমরা তাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
হাসান আল মামুন ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন, পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নূরুল হক নূর, রাশেদ খান ও ফারুক হাসান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মাদার অব এডুকেশন ঘোষণা করেন নূরুল হক নূর। রাশেদ খান পাঁচ দফা দাবি পড়ে শোনান।

সংবাদ সম্মেলন শেষে শিক্ষার্থীরা আনন্দ মিছিল বের করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদণি করেন। মিছিলটি শহীদ মিনার, দোয়েল চত্বর, টিএসসি, কলা ভবন, কমার্স ফ্যাকাল্টির সামনের রাস্তা হয়ে মুহসীন হলের সামনে, ভিসি চত্বর হয়ে আবার টিএসসিতে এসে শেষ হয়। এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেন।

উল্লেখ্য, গত বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে কোটাপদ্ধতি সম্পূর্ণরূপে বাতিলের ঘোষণা দেন। কিন্তু এ ঘোষণায় সাথে সাথে উল্লাস প্রকাশ করতে পারেনি কোটা সংস্কার দাবিতে আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষার্থী ও নেতৃবৃন্দ। কারণ তাদের দাবি ছিল কোটা সংস্কার করা হোক। ১০ ভাগের বেশি কোটা থাকবে না কোনো অবস্থাতেই। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী কোটা সম্পূর্ণ বাতিল করায় অনেকে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এর ফলে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানসহ অনেকে আদালতে যাবেন কোটা রক্ষার জন্য। তখন বিষয়টি স্থগিত বা দীর্ঘপ্রক্রিয়ার মধ্যে পড়ে যাবে। অনেকের অনুমান এর মধ্যে সূক্ষ্ম রাজনীতি থাকতে পারে।

সে কারণে আন্দোলনকারীরা বুধবার সাংবাদিকদের জানান, তারা প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ভালো করে পর্যালোচনা করে পরদিন প্রতিক্রিয়া জানাবেন।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃত্বে শিক্ষার্থীরা গতকাল ধানমন্ডির বাড়িতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। কোটা সংস্কারের দাবিতে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শাহবাগে আন্দোলন করে আসছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.