Home শীর্ষ সংবাদ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট: নারী ও শিশু যাত্রীরা সবচেয়ে বেশী ভোগান্তির শিকার

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট: নারী ও শিশু যাত্রীরা সবচেয়ে বেশী ভোগান্তির শিকার

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক তীব্র যানজটে অচল হয়ে পড়েছে। এই মহাসড়কের যাত্রীদের ভোগান্তির যেন শেষ নেই। গতকাল বুধবার রাত ১২টা থেকে ফেনীর মহাসড়ক রেলগেট থেকে মিরসরাইয়ের বড় দারোগার হাট পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার এলাকায় এ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল নয়টা পর্যন্ত এ যানজট ছাড়েনি।

মিরসরাইয়ের এ পথে চট্টগ্রামমুখী গাড়ি ধীরলয়ে চললেও ঢাকামুখী কোনো গাড়িই নড়ছে না। এতে সড়কে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাকসহ শত শত গাড়ি আটকা পড়ে আছে। যাত্রীদের ভোগান্তির শেষ নেই। বিশেষ করে নারী ও শিশু যাত্রীদের বিড়ম্বনা ও কষ্ট সর্বাধিক। ঢাকামুখী একটি লরির চালক মো. সফিউল আলম বলেন, ‘যানজট কখন থেকে শুরু হয়েছে, তা বলতে পারব না। আমি মিরসরাই সদরে ভোররাত চারটা থেকে সকাল নয়টা পর্যন্ত আছি। গাড়ি এক চুলও নড়েনি।’

চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশে রাত সাড়ে ১০:৩০ এ যাত্রীবাহী একটি বাসে ওঠেন ইসমাত জাহান ও তার শিশু সন্তান কামরুল। তিনি বলেন, ‘রাত ২টা থেকেই যানজটে বারইয়ারহাট এলাকায় আটকা পড়ে আছি। আশপাশে কোনো টয়লেট নেই, খাবারের দোকান নেই। ভীষণ কষ্ট হচ্ছে। বাচ্চাকে শান্ত রাখতে পারছি না।

দীর্ঘ যানজটের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) একরামুল ইসলাম বলেন, ১২ দিন ধরে ফেনীর রেলগেট এলাকায় মধ্যরাত হলেই রাস্তায় যানজট শুরু হচ্ছে। সেখানে রাস্তায় উন্নয়নকাজ চলায় রাস্তা একমুখী করা হয়েছে। রাতে মালবাহী ট্রাকের চাপ পড়লেই এই যানজট তীব্র হয়।

একরামুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সার্বক্ষণিক রাস্তায় আছি। চট্টগ্রামমুখী পথে কিছু গাড়ি চললেও ঢাকামুখী পথ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে আছে।’ সঠিকভাবে দায়িত্বশীলদের কেউই বলতে পারছেন না, এই ভোগান্তির শেষ কবে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.