Home আন্তর্জাতিক আফগানিস্তানে গুরুত্বপূর্ণ সেনাঘাঁটি তালেবানের দখলে: কাবুলে গোয়েন্দা দফতরে হামলা

আফগানিস্তানে গুরুত্বপূর্ণ সেনাঘাঁটি তালেবানের দখলে: কাবুলে গোয়েন্দা দফতরে হামলা

0
যুদ্ধ প্রস্তুতিতে তালিবান যোদ্ধারা। -ফাইল ছবি।

উম্মাহ অনলাইন: আফগানিস্তানের ফারিয়াব প্রদেশের ঘোরমাচ জেলায় একটি গুরুত্বপূর্ণ সেনাঘাঁটি দখল করে নিয়েছে তালেবান বাহিনী। তারা ১৭ সরকারি সৈন্যকে হত্যা ও ৪০ জনকে আটক করে বলেও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন। অপরদিকে গজনিতে লড়াই চলছে বলে সংবাদ মাধ্যম খবর দিয়েছে।

প্রাদেশিক পরিষদের প্রধান তাহির রেহমানি জানান যে ঘাঁটির সেনারা কাবুলের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছিলো। কিন্তু কর্তৃপক্ষ গজনিকে নিয়েই ব্যস্ত। তিন দিন ধরে গজনিতে তালেবান হামলায় শতাধিক সরকারি সেনা ও ২০ জনের মতো বেসামরিক লোক নিহত হয়। আফগান বাহিনী প্রাদেশিক রাজধানীর কেন্দ্রস্থল পুনরুদ্ধারের দাবি করলেও লড়াই এখনো চলছে।

কাবুল ও দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহারের মধ্যে সংযোগ স্থাপনকারী মহাসড়ক গজনির মধ্য দিয়ে গিয়েছে। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, এই শহর কাবুল ও বিদ্রোহীদের মজবুত ঘাঁটি দেশের দক্ষিণাঞ্চলের মধ্যে সংযোগ রক্ষা করে। তালেবানরা শহরের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে বলা সরকারের তরফে দাবি করা হচ্ছে। তবে বিভিন্নস্থানে তালেবান যোদ্ধাদের সঙ্গে যুদ্ধ চলছে এবং নগরীর চারপাশে গ্রামগুলো বিদ্রোহী যোদ্ধায় ভরে গেছে।

২০১৬ সালে কন্দুজ শহরের পর তালেবান বাহিনী বড় কোন জেলা শহর দখল করতে পারেনি। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় দর কষাকষির জন্য সুবিধাজনক অবস্থানে থাকতে তালেবানরা সর্বশেষ এই অভিযান চালিয়েছে।

অপর এক খবরে বলা হয়, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে একটি গোয়েন্দা সংস্থার দফতরে কয়েকজন বন্দুকধারী হামলা চালিয়েছে। তবে এখনও হতাহতের ব্যাপারে কিছু নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়। একদিন আগেই শহরটির একটি কোচিং সেন্টারের সামনে বোমা হামলায় ৪৮ জন নিহত হয়েছিলেন। আহত হন আরও ৬৭ জন। হতাহতদের অধিকাংশই বয়সে তরুণ। তবে বৃহস্পতিবার সকালের হামলায় এখনও হতাহতের সংখ্যা জানা যায়নি।

স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ১০টার সময় শহরের কালা-ই-ওয়াজির এলাকায় হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। কাবুল পুলিশের মুখপাত্র হাশমত স্তানিকজাই বলেন, আমরা এখন ভবনটিতে আটকে পড়াদের উদ্ধারের চেষ্টা করছি। তিনি বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা এলাকাটি ঘিরে ফেলেছে। বন্দুকধারীরা ওই সেন্টারের বিপরীত পাশ থেকে গুলি চালাচ্ছিলো। – এএফপি, সাউথ এশিয়ান মনিটর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.