Home শীর্ষ সংবাদ নির্বাচন কমিশন সরকারের সহায়ক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে: মাহমুদুর রহমান মান্না

নির্বাচন কমিশন সরকারের সহায়ক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে: মাহমুদুর রহমান মান্না

0

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, গত কয়েক বছর ধরে সরকার যেসব অবৈধ কীর্তি-কলাপ চালাচ্ছে, প্রকান্তরে সরকারকে নির্বাচন কমিশন সেসব বিষয়ে সহযোগিতা করছে। পত্রিকায় দেখলাম প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বলেছেন, ডিসেম্বরে নির্বাচন করব এই রকম কথা বলিনি। আগে কী বলেছেন তিনি ভুলে গেছেন। তিনি (সিইসি) মাঝে একবার বলেছিলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন করা আমাদের পক্ষে সম্ভব না।

আজ (৮ অক্টোবর) সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে সোনার বাংলা পার্টি ও জনদলের যুক্তফ্রন্টে যোগদান উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমরা যুক্তফ্রন্টের পক্ষ থেকে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য ৫ দফা দাবি দিয়েছি। পরে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার পক্ষ থেকে সেই দাবি দেওয়া হয়েছে। এর আগে বিএনপির পক্ষ থেকে একই দাবি দেওয়া হয়েছিল। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ ও সাংবাদিকরা আমাদের কাছে জিজ্ঞাসা করে, এই সরকার তো দাবি মানবে না, শেখ হাসিনা ক্ষমতা ছাড়বে না, তাহলে আপনারা কী করবেন? আমি বলি ক্ষমতায় কেউ চিরস্থায়ী থাকে না। বাংলাদেশে কেউ একাধারে এতদিন ক্ষমতায় থাকতে পারেনি। পাকিস্তানের আইয়ুব খান ১০ বছর ক্ষমতায় ছিলেন, কিন্তু ক্ষমতার এক দশক পালনের কিছু দিন পরই তার পতন ঘটে। এখন আমাদের সরকার একইভাবে সারাদেশে উন্নয়নের মেলা করছে। তারাও ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। সোমবার আপনারা দেখেছেন, যুক্তফ্রন্ট, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া ও বিএনপি ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছে।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, সারাদেশে আজ সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্য গড়ে উঠেছে। এই ঐক্য ভোটের ঐক্য। মানুষ আমাদেরকে বলে, আমরা কি ভোট দিতে পারবো? ভোটের নামে দেশে আর ছলচাতুরি করতে দেওয়া হবে না, বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা ঐক্যের মাধ্যমে দেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চাই। গণতন্ত্র মানে শুধু স্বাধীনভাবে কথা বলার অধিকর নয়, গণতন্ত্র মানে আপনার স্বাধীন জীবনযাপনের অধিকার। অথচ আজ দেশ স্বাধীনের ৪৭ বছরেও পূর্ণ গণতন্ত্র আসেনি।

খালেদা জিয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাংলাদেশের তিন তিনবারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তাকে আজ জেলে বন্দি রাখা হয়েছে। তাকে সঠিকভাবে চিকিৎসা সেবা পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে না। তার অধিকার হরণ করা হচ্ছে।

মান্না বলেন, শেয়ার বাজার লুট হয়েছে, ব্যাংক লুট হয়েছে। লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা যারা লুট করেছে, সরকার তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিয়েছে? কোনো মামলা করেছে? অথচ আড়াই কোটি টাকার মামলায় খালেদা জিয়ার ৫ বছরের জেল দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, সরকার আজ বিচার ব্যবস্থাকে গুড়িয়ে দিয়েছে। আপনারা সাবেক প্রধান বিচারপতির বই দেখেছেন, সেখানে কী বলা হয়েছে। সরকার কত নির্লজ্জ হলে এভাবে বিচার বিভাগকে ধ্বংস করতে পারে।

ছাত্রলীগের সাবেক এ নেতা বলেন, মানুষ আজ আন্দোলন করতে গেলেই নির্যাতন করছে। অন্যায়ভাবে মামলা দিচ্ছে, হয়রানি করছে। দেশ আজ পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। এই সরকারের মতো নির্যাতন এরশাদও করেনি।

নতুন দুই দল সম্পর্কে তিনি বলেন, সোনার বাংলা পার্টি ও বাংলাদেশ জনদল যুক্তফ্রন্ট গঠিত হওয়ার পর থেকেই আমাদের সঙ্গে ছিল। আজ আনুষ্ঠিকভাবে আমাদের সাথে যুক্ত হয়েছে। অন্য দলগুলো সরকারের কাছে যেয়ে, ক্ষমতার ভাগীদার হওয়ার চেষ্টা করছে। তারা (উল্লিখিত দুই দল) সেদিকে না যেয়ে যুক্তফ্রন্টের সাথে যুক্ত হয়ে আন্দোলন-সংগ্রামে শামিল হয়েছে, তাদেরকে সাধুবাদ জানাই।

সোনার বাংলা পার্টির সভাপতি শেখ আব্দুর নূরের সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, মাহাতাব হোসেন, বাংলাদেশ জনদলের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জয় চৌধুরী প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.