Home আন্তর্জাতিক সৌদি আরবের স্থিতিশীলতা গত ৫০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে ঠেকেছে

সৌদি আরবের স্থিতিশীলতা গত ৫০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে ঠেকেছে

0
উম্মাহ অনলাইন: সৌদি আরবের স্থিতিশীলতা ৫০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন স্থানে অবস্থান করছে বলে মন্তব্য করেছে আরবি ভাষার পত্রিকা আল-মনিটর । পত্রিকাটি বলছে, গত ৫০ বছরে সৌদি আরবের স্থিতিশীলতা কখনো এত বেশি অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েনি। দেশটির সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও তরুণ যুবরাজের উপযুক্ততার কারণে এ অবস্থার তৈরি হয়েছে।পত্রিকাটি আরো বলেছে, যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান সিংহাসনের উত্তরাধিকারি হওয়ায় তিনি দেশের ভেতরে ও বাইরের যেকোনো বিষয়ে খেয়ালখুশি মতো সিদ্ধান্ত নেন, যা সৌদি আরবকে বহু প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়েছে। এমনকি দেশটির ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

সৌদি বাদশাহ ফয়সালের শাসনামলে বিশেষ করে ১৯৭৩ সালের তেল নিষেধাজ্ঞার সময় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল ব্যাপক। তার হত্যাকাণ্ড কিংবা সন্ত্রাসীদের হাতে মসজিদুল হারামের দখলের ঘটনা বাদ দিলে দেশের স্থিতিশীলতা ছিল অনেক উঁচুতে। কিন্তু যুবরাজ বিন সালমানের কারণে এখন সেই স্থিতিশীলতা নেই।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে বাদশাহ আবদুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজের ইন্তেকালের পর সালমান বিন আব্দুল আজিজ সৌদি আরবের বাদশাহ হন। তিনি ক্ষমতাসীন হাবার পর তাৎক্ষনিক-ভাবে দুটো সিদ্ধান্ত নেন। এর মধ্যে একটি হচ্ছে, তাঁর ছেলে মোহাম্মদ বিন সালমানকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ করা। তিনি প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাবার পরেই ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে সৌদি আরবের নেতৃত্বে ইয়েমেনে শুরু হয় সামরিক অভিযান। হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে গত দুই বছর ধরে ইয়েমেনে সামরিক অভিযান চললেও তেমন কোন অগ্রগতি হয়নি।

সৌদির ক্রাউন প্রিন্স হওয়ার পর মোহাম্মদ বিন সালমান মার্কিন গণমাধ্যমে নিজের প্রথম সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন,‘‘ রাজপরিবারের ১৫ হাজার রাজপুত্রের কেউই তাকে ক্ষমতা থেকে সরাতে পারবে না এবং তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সৌদি আরবের ক্ষমতা ছাড়বেন না।’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.