Home শীর্ষ সংবাদ নুসরাত হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

নুসরাত হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

1
- ফাইল ছবি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার অগ্নিদগ্ধ মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন।

পাশাপাশি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, রাফিকে আগুনে ঝলসে মারার ঘটনায় দোষীদের বিচার দ্রুত বিচার আইনে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বাসসকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নুসরাতের হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় আনতে এবং শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, নুসরাতের মর্মান্তিক মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। শেখ হাসিনা নুসরাতের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

৬ এপ্রিল নুসরাত জাহান রাফির শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। গুরুতর আহত অবস্থায় ওইদিন রাতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নুসরাত জাহান রাফি মারা যান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আমরা এটাকে (নুসরাত হত্যার ঘটনা) খুবই সিরিয়াসলি নিয়েছি। কোনো আসামি কিংবা যারা এখানে বিন্দুমাত্র জড়িত ছিল, তাদের কেউ আইনের হাত থেকে বাদ যাবে না।

তাদের সবাইকে বিচারের মুখোমুখি আমরা করব। এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ এলে এবং তা প্রমাণিত হলে তারা কেউ রেহাই পাবে না। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ও বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এরই মধ্যে ফেনীর সোনাগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) বদলি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকও উপস্থিত ছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নুসরাত হত্যার ঘটনায় আমরা সবাই দুঃখ প্রকাশ করছি। আসলেই আমরা সবাই ব্যথিত। এ ধরনের মৃত্যু আমাদের সবাইকে ব্যথিত করে। তাকে যে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়েছে, পুড়িয়ে মারা হল, এটা কারও কাম্য নয়। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আসলে সেখানে কি ঘটনা ঘটেছে, সে জন্য পিবিআই তদন্তভার গ্রহণ করেছে।

অপরাধীদের মুক্তির দাবিতে কেউ কেউ আন্দোলন করছেন- এরা কারা এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, দেখুন এ ধরনের কর্মকাণ্ড যারা করছেন, তারা হয়তো না জেনেই করছেন।

কারণ এই অধ্যক্ষ বা যারা এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে তাদের বিষয়ে আন্দোলনকারীরা যদি জানত তাহলে তারা এই আন্দোলন করত না। মন্ত্রী বলেন, আমি যেটা বলতে চাই, পিবিআইর ইনভেস্টিগেশনের পর জানা যাবে অধ্যক্ষ দোষী কি না বা কতখানি তিনি দোষ করেছেন। এটা অবশ্যই আমরা বের করব। অবশ্যই অপরাধীকে শাস্তি পেতে হবে।

এবং যারা অধ্যক্ষের মুক্তির দাবিতে আন্দোলন করছেন, তারা তখন তাদের ভুলের প্রমাণ পাবেন। এ সময় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘নুসরাত হত্যার বিচার প্রয়োজনে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিষ্পত্তি করা হবে। অপরাধীরা কোনোভাবেই রেহাই পাবে না। জঘন্যতম এ হত্যাকাণ্ডের বিচার দ্রুত নিষ্পত্তি করে আমরা বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে চাই।’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নুসরাতের ঘটনায় প্রসিকিউশনকে বলেছি তারা যেন দ্রুততম সময়ে এবং সর্বোচ্চ সতর্কতার সঙ্গে তাদের কাজটা করেন।’

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.