Home রাজনীতি স্কুলে পাশ্চাত্য স্টাইলে সচিত্র যৌন সহশিক্ষা বন্ধ করতে হবে: আমেলা বৈঠকে জমিয়ত...

স্কুলে পাশ্চাত্য স্টাইলে সচিত্র যৌন সহশিক্ষা বন্ধ করতে হবে: আমেলা বৈঠকে জমিয়ত নেতৃবৃন্দ

1

উম্মাহ প্রতিবেদক: জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর নেতৃবৃন্দ বলেন, আমাদর দেশের ছেলে-মেয়েদেরকে বেহায়া ও নির্লজ্জ করে ধর্মীয়, পারিবারিক ও সামাজিক অনুশাসন ভেঙ্গে দিতে পশ্মিম বিশ্বের টাকায় তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কোমলমতি ছেলে-মেয়েদেরকে একসাথে বসিয়ে প্রজনন শিক্ষার নামে উম্মুক্ত যৌন শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। ধীরে ধীরে সারাদেশের স্কুলগুলোতে এ শিক্ষা চালু করার পাঁয়তারা করছে সরকার। বেহায়াপনার ষোলকলায় ভরা উন্মুক্ত সহ যৌনশিক্ষা বন্ধ করতে হবে।

জমিয়ত নেতৃবৃন্দ বলেন, ইসলাম, সমাজ ও নৈতিকতা বিরোধী এ কার্যক্রম বাংলাদেশের জনগণ মেনে নেবে না। প্রয়োজনে এর জন্য রাজপথে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে দেশের জনগণ। ৯০ ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত একটি দেশে ইসলামী তাহযিব-তামাদ্দুন বিবর্জিত এমন পশ্চিমা স্টাইলের বেহায়াপনার শিক্ষা কোনভাবেই বরদাশ্ত করা হবে না। জেনারশেন ব্রেকথ্রু নামক প্রকল্পের আওতায় দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নৈতিকভাবে ধ্বংশ করার জন্য এ অপতৎপরা চালু করা হয়েছে।

তারা বলেন, কিশোর বয়সী ছেলে মেয়েদেরকে একসাথে বসিয়ে তাদের পরস্পরের মধ্যে যাতে যৌন বিষয়ে কোন জড়তা না থাকে, সেজন্য প্রজনন শিক্ষার নামে এ কুশিক্ষা চালু করা হয়েছে। পর্দার আড়ালে আমাদের দেশের কোমলমতি ছেলে মেয়েদের আগামী অন্ধকার করার জন্য কানাডার অর্থায়নে এ প্রকল্প চালু করা হয়েছে। অবিলম্বে এ প্রকল্প বন্ধ করতে হবে।

আজ (৬ এপ্রিল) শনিবার সকাল ১০টায় জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর কার্যনির্বাহী পরিষদের (আমেলা) বৈঠকে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর সহসভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসূফী।

জমিয়তের যুগ্মমহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দিন যাকারিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে বক্তব্য রাখেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, সহসভাপতি মাওলানা জহিরুল হক ভুঁইয়া, মাওলানা জুনায়েদ আল-হাবীব, যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মঞ্জরুল ইসলাম আফেন্দী, মাওলানা তাফাজ্জুল হক আজীজ, মাওলানা মোহাম্মদ উল্লাহ জামী, মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নাজমুল হাসান, মাওলানা খলিলুর রহমান সিলেট, মাওলানা সানাউল্লাহ মাহমুদী, মাওলানা মুতিউর রহমান গাজীপুরী, মাওলানা শাহজালাল, মাওলানা খলিলুর রহমান বিক্রমপুর, মাওলানা জামিল আহমদ আনছারী, অর্থসম্পাদক মুফতি জাকির হোসাইন কাসেমী, মাওলানা ফয়জুল হাসান খাদিমানী, প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন, মাওলানা জিয়াউল হক কাসেমী, মাওলানা শরফুদ্দীন ইয়াহইয়া, মুফতি হাসান ফারুক, মাওলানা আব্দুল গফ্ফার ছয়ঘরী, মাওলানা বশিরূল হাসান খাদিমানী, মাওলানা ছিদ্দিকুর রহমান চৌধুরী, মাওলানা হাফেজ কবির আহমদ, মাওলানা তৈয়বুর রহমান চেধৈুরী, মাওলানা মফিজুর রহমান, মাওলানা তোফায়েল আহমদ, মাওলানা মখলিছুর রহমান, মাওলানা এখলাছুর রহমান, মাওলানা আব্দুল আউয়াল, মাওলানা দেলাওয়ার, মুফতী হেদায়াতুল ইসলাম প্রমূখ।

সকাল ১০টা থেকে একটানা বেলা দেড়টা পর্যন্ত বৈঠক চলছিল। বৈঠকে জমিয়তের কার্যক্রমকে দেশব্যাপী আরো গতিশীল করার লক্ষ্যে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। জমিয়ত মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী সাংগঠনিক কার্যক্রমকে আরো গতিশীল ও দায়িত্বশীলতার সাথে যথাযথভাবে পালন করতে দলের নেতৃবন্দের প্রতি আহ্বান জানান।

আল্লামা কাসেমী বলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম হক্কানী উলামায়ে কেরামের সংগঠন। কঠোরভাবে ইসলামী নীতি-আদর্শ এবং দলীয় গঠনতন্ত্র ও শৃঙ্খলা বজায় রেখে সকল স্তরে দলকে পরিচালনা করতে হবে। দলের ঐক্য ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় এমন তৎপরতা থেকে সকলে নিজেদেরকে বিরত রাখবেন। সুন্নাতের উপর আমল করবেন। দ্বীন ইসলাম, মানব সেবা ও আদর্শ সমাজ গঠনের মহৎ লক্ষ্যকে সামনে রেখে কাজ করে যাবেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে দেশ ও জাতি গভীর এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। দলের নেতাকর্মী সকলে সীসাঢালা ঐক্যের সাথে আমাদের আকাবির ও হক্কানী ওলামায়ে কেরামের এই দলকে সফলতার উচ্চাসনে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাবেন। তিনি দ্বীনি, সামাজিক ও মানবিক কর্মকাণ্ডে দলের নেতাকর্মীদেরকে সম্পৃক্ত থাকার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

সব শেষে দেশ ও জাতির শান্তি, কল্যাণ, নিরাপত্তা ও বরকত এবং জমিয়তের উলামায়ে ইসলামের উন্নতি ও কামিয়াবীর জন্য দোয়া-মুনাজাতের মাধ্যমে সভার কার্যক্রম শেষ হয়।

রমজানের আগেই পণ্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি প্রবণতা: সক্রিয় সিন্ডিকেট চক্র