Home আঞ্চলিক সাবেক ছাত্র নেতা জসীম উদ্দীন বকশিশাহ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত

সাবেক ছাত্র নেতা জসীম উদ্দীন বকশিশাহ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত

মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন ভূঁইয়া।

ফেনী সংবাদদাতা: ফেনী ফুলগাজী উপজেলার বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক ছাত্র নেতা ও সমাজ সেবক মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন ভূঁইয়া। তিনি স্কুল পরিচালনা কমিটির বর্তমান সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার কাছ থেকে পরবর্তী সেশনের দুই বছর মেয়াদী নতুন কমিটির সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত (৪ মে) শনিবার বিকাল ৩টায় স্কুল পরিচালনা কমিটির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নতুন নির্বাচনের প্রস্তাব আহ্বান করেন ফুলগাজী উপজেলা শিক্ষা অফিসার এনামুল হক। এরপর স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আলহাজ্ব মীর হোসেন চৌধুরী নতুন সেশনের জন্য সভাপতি হিসেবে মোহাম্মদ জসীম উদ্দীনের নাম প্রস্তাব করেন। অভিভাবক সদস্য আলমগীর হোসেন খন্দকার প্রস্তাব সমর্থন করেন।

সভায় প্রার্থী হিসেবে আর কারো নাম প্রস্তাব না আসায় উপজেলা শিক্ষা অফিসার এনামুল হক সর্বসম্মতিক্রমে মোহাম্মদ জসীম উদ্দীনকে ‘সভাপতি’ নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

এদিকে সাবেক ছাত্র নেতা মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য ও জিএমহাট যুবলীগের সভাপতি আলমগীর হোসেন খন্দকার। তিনি তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, জসীম উদ্দীন ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সাথে ছাত্র জীবন থেকেই জড়িত থাকলেও সামাজিক কর্মকাণ্ডে তিনি সর্বমহলে জনপ্রিয়। এলাকার মানুষ তাঁকে গণমানুষের অত্যন্ত আস্থাভাজন তরুণ নেতা হিসেবে জানেন। আমার বিশ্বাস, তিনি বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের হৃত গৌরব ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হবেন। কারণ, এতদিন যারা স্কুল পরিচালনার শীর্ষ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন, তারা সকলেই ফেনী জেলার বাইরে রাজধানী ঢাকা বা চট্টগ্রামে বসবাস করতেন। যে কারণে, তাদের পক্ষে প্রত্যক্ষভাবে দায়িত্ব পরিচালনা করা সম্ভব হয়নি। যে কারণে এক সময়ের সুনামখ্যাত বকশি শাহ উচ্চবিদ্যালয় গত ক’বছর ধরে পড়ালেখা ও প্রশাসনিক শৃঙ্খলায় অত্যন্ত হতাশাজনক পরিস্থিতির মুখে পড়েছে।

ফেনী জেলা যুবদলের সহসভাপতি ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সাবেক সদস্য আবুল বাশার নতুন সেশনের জন্য জসীম উদ্দীন সভাপতি নির্বাচিত হওয়া গভীর সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, স্কুল জীবনের ছাত্র রাজনীতি থেকে শুরু করে এখনো আমরা একসাথেই উঠাবসা করি। জসীম ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সাথে যুক্ত এবং আমি বিএনপির সাথে। কিন্তু সামাজিক সম্পর্কে আমাদের মধ্যে সেই শুরু থেকেই এখনো অত্যন্ত আন্তরিকতা বিদ্যমান এবং আগামীতেও এটা অটূট থাকবে, ইনশাআল্লাহ।

আরও পড়ুন- ‘কাঁচা তরল দুধের ৯৬ নমুনার ৯৩টিতে ক্ষতিকর মাত্রার উপাদান’

আবুল বাশার বলেন, আমাদের চোখের সামনেই জসীমের সহকর্মীদের অনেকেরই গাড়ি-বাড়ী ও অর্থসম্পদের বিশাল উন্নতি হলেও রাজনীতিতে প্রভাবশালী অবস্থানে থাকা সত্ত্বেও জসীম সেই আগের মতোই সাধারণ জীবন যাপনে রয়ে গেছেনে। গণমানুষকে নিয়ে যারা কাজ করেন এবং যারা সৎ জীবন যাপনে অভ্যস্ত, তারা এমনই হয়ে থাকেন।

যুবদল নেতা আবুল বাশার আরো বলেন, লেখাপড়ার গুণগত সুনামের দিক দিয়ে এক সময় বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয় শুধু স্থানীয় পর্যায়েই ঈর্ষনীয় এক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছিল না, বরং জাতীয় পর্যায়েও খ্যাতি পেয়েছিল। মাধ্যমিক সার্টিফিকেট পরীক্ষায় সারা বাংলাদেশে মেধা তালিকায় এক নম্বরে স্থান পাওয়া নীলিমা আক্তার এই স্কুল থেকে পরীক্ষা দিয়েই কৃতিত্ব পেয়েছেন। এই স্কুল থেকে জাতীয় পর্যায়ে আরো অনেকেই মেধা তালিকায় স্থান করে নিতে পেরেছেন। কিন্তু অত্যন্ত হতাশাজনক বিষয় হচ্ছে, পর্যায়ক্রমে স্কুলের বর্তমান লেখাপড়ার মান বলতে গেলে একেবারেই তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। এক সময়ের গৌরবের অধিকারী প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান অবস্থা আমাদের হৃদয়ে ক্ষত তৈরি করে।

তিনি বলেন, নতুন সভাপতি হিসেবে জসীম উদ্দীন নির্বাচিত হওয়ায় খুশি হয়েছি চারটা কারণে। এক. নতুন সভাপতি ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকলেও বর্তমান রাজনৈতিক কালচারের বাইরে এসে তিনি এলাকার সবার সাথে মিলেমিশে ও সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলেন এবং সবসময় এলাকাতেই থাকেন। দুই. দীর্ঘ দিন ধরে তিনি সামাজিক স্তরে সুবিচার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠায় সক্রিয় ভূমিকা রেখে আসছেন। তিন. ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত সৎ ও ক্লিন ইমেজের অধিকারি হিসেবে সকলের আস্থাভান। চার. তিনি এই পদে দায়িত্ব পালনের বিষয়ে পূর্ব অভিজ্ঞতা সম্পন্ন। কারণ, তিনি লাগাতার কয়েক সেশন ধরে আমাদের এলাকার আরেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বকশি শাহ ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিসেবে অত্যন্ত সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এসকল দিক বিবেচনায় নতুন সভাপতির কাছ থেকে সুদক্ষ পরিচালনার ব্যাপারে আমরা অনেক বেশি আশাবাদি।

জিএমহাট বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্র নেতা রোকউদ্দীন মিলন বলেন, নতুন সভাপতি স্থানীয় এলাকাবাসীর কাছে অন্যতম আস্থাভাজন ব্যক্তিত্ব ও প্রিয়মুখ। সামাজিক পরিসরে সুবিচার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠায় তিনি দীর্ঘ দিন ধরে নিরলস কাজ করে আসছেন। আমরা পূর্ণ আশাবাদি, নতুন সভাপতির নেতৃত্বে স্কুলটির শিক্ষা ও প্রশাসনিক স্তরে সুন্দর শৃঙ্খলা ফিরে আসবে এবং উন্নতি করবে।

বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় মোহাম্মদ জসীম উদ্দীনকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বর্তমান কমিটির সদস্য ও ইউনিয়ন পরিষদের সচিব ফজলুল করীম দুলাল। তিনি বলেন, বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতি করে অনেকে বিশাল বিত্ত-বৈভবের মালিক হয়েছেন। গাড়ি-বাড়ি ও ব্যবসায় অনেকে উন্নতি করেছেন। বর্তমান রাজনীতিবিদরা স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে যোগাযোগ রাখেন না বললেই চলে। কিন্তু নতুন সভাপতির চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। তিনি দীর্ঘ দুই যুগেরও বেশি সময় ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সক্রিয় নেতৃত্বে থেকেও আগের মতোই অত্যন্ত সাদামাটা জীবন যাপন করে যাচ্ছেন। তার ব্যক্তিগত ক্লিন ইমেজের বিষয়ে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের-নেতাকর্মীরাও বিশেষ শ্রদ্ধার চোখে দেখেন।

ফজলুল করীম দুলাল আরো বলেন, নতুন সভাপতির বিশেষ কৃতিত্ব হল, তিনি ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও স্থানীয় এলাকায় দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে অত্যন্ত আস্থাভাজন ইমেজ তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন। সমাজে ন্যায় ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে জসীম উদ্দীনের ভূমিকা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। আমরা আশাবাদি, তিনি বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়ার গুণগাত মানে বর্তমান দুরবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে পূর্বের সুনাম ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হবেন।

উল্লেখ্য, বকশি শাহ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নতুন সভাপতি মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন ১৯৮৮ সালের দিকে ছাত্র রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। পর্যায়ক্রমে তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেছেন এবং ফেনী কলেজ ছাত্র লীগের নেতৃত্বেও ছিলেন। বর্তমানে তিনি জিএমহাট বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব ছাড়াও বকশি শাহ ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতির পদে অধিষ্ঠিত আছেন। এছাড়া তিনি ফেনী জেলা সিএনজি অটোরিক্সা মালিক সমিতির সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।