Home আঞ্চলিক মেহেরপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

মেহেরপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

বন্দুক যুদ্ধে নিহত ইয়াকুব আলী কাজল।

ডেস্ক রিপোর্ট: মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ইয়াকুব আলী কাজল (২৮) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে; যার বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপের মামলা রয়েছে।

আজ (শনিবার) রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার গাড়াডোব গ্রামের একটি বাঁশবাগানে ইয়াকুব গুলিবিদ্ধ হন। ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শ্যুটার গান, দুইটি গুলি ও একটি রাম দা উদ্ধার করা হয়েছে। ইয়াকুব আলীর বাড়ি গাড়াডোব গ্রামে। তার বাবার নাম জালাল উদ্দীন হাবু।

গাংনী থানার পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণ ও এসিড নিক্ষেপের অপরাধ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছিলেন ইয়াকুব আলী।

তিনি আরও জানিয়েছিলেন, তার কাছে বেশ কয়েকটি অস্ত্র রয়েছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে অস্ত্র উদ্ধারে গাড়াডোব গ্রামে যায় পুলিশের একটি দল। এ সময় সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুঁড়লে গুলিবিদ্ধ হন ইয়াকুব। সন্ত্রাসী হামলায় চার পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। স্থানীয়দের সহায়তায় ইয়াকুবকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন, বলেন সাজেদুল ইসলাম।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় গাড়াডোব গ্রামের এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের পরে গণধর্ষণ করেন কাজল এবং তার সহযোগীরা। ওই ঘটনায় স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে গাংনী থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই ঘটনার পর থেকে ধলা গ্রামে দুর-সম্পর্কের ভগ্নিপতি সেলিম হোসেনের বাড়িতে আত্মগোপনে ছিলেন ইয়াকুব। ওই গ্রামে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ইয়াকুব এক গৃহবধূর শরীরে এসিড নিক্ষেপ করেন। ভুক্তভোগী গৃহবধূ বর্তমানে গাংনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বিএসএফের নির্যাতনে সাতক্ষীরা সীমান্তে বাংলাদেশি নিহত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.