Home অন্যান্য পর্দার বিরুদ্ধে যে কোনো বক্তব্য নারী নিরাপত্তার জন্য হুমকিজনক: আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী

পর্দার বিরুদ্ধে যে কোনো বক্তব্য নারী নিরাপত্তার জন্য হুমকিজনক: আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী

আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী। - ফাইল ছবি।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাবেক সিনিয়র নায়েবে আমির, চট্টগ্রাম ফটিকছড়ি জামিয়া আজিজুল উলূম বাবুনগর মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী বলেছেন, ধর্মপ্রাণ মুসলিম নারীদের বাইরে চলাচলের সময় হাত ও পা মোজা পরা এবং চেহারা ঢেকে চলা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর আপত্তিকর বক্তব্য ইসলাম অবমাননার শামিল। তাঁর এই বক্তব্য প্রত্যাহার করে প্রকাশ্যে তাওবা করা উচিত।

আজ (১৫ জুন) শনিবার সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, হিজাব বা পর্দা ইসলামের অন্য দশটি ফরজ বিধানের মত একটি জরুরী ও কল্যাণময় বিধান। যা পবিত্র কোরআনের সাতটি আয়াত অর্ধশত হাদিস দ্বারা প্রমাণিত।

তিনি বলেন, পর্দা নারীর রক্ষাকবচ। পর্দার কারণে নারী জাতি সুরক্ষিত থাকে। সমাজে নারী ধর্ষণ ও ইভটিজিং বন্ধ হবে এই পর্দা সকলে পালন করে চললে। পর্দা নারীর সম্মান বৃদ্ধি করে। সম্ভ্রম রক্ষা করে। পর্দার বিরুদ্ধে যে কোনো বক্তব্য নারী নিরাপত্তার জন্য হুমকি তৈরি করে।

তিনি বলেন, গত ৯ জুন রোববার গণভবনে সংবাদ সম্মেলনের একপর্যায়ে ধর্মপ্রাণ মুসলিম নারীদের পর্দার প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “হাত মোজা পা মোজা নাক-চোখ ঢাইকা একেবারে এটা কি? জীবন্ত ট্যান্ট (তাঁবু) হয়ে ঘুরে বেড়ানো, এর তো কোনো মানে হয় না”।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, পর্দা করা ইসলামের আদেশ। হাত-পা মোজা ও নেকাব মুসলিম পর্দানশীন নারীদের পোশাক। তাই প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য ইসলাম ও মুসলিমদের জন্য অত্যন্ত অবমাননাকর হয়েছে। এই বক্তব্যে ইসলামের অপরিহার্য বিধান পর্দাকে বাজেভাবে কটাক্ষ করা হয়েছে।

আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী বলেন, প্রাধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের কারণে ইসলামের পক্ষে ইতঃপূর্বে প্রদত্ত তাঁর সব বক্তব্য ও কাজগুলো এমনকি পবিত্র রমজানে উমরাকালে তার বোরকা ও হিজাব পরিধান জাতির কাছে এখন প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়েছে। – বিজ্ঞপ্তি।

মুসলমানগণ কখনো মন্দ কাজ ও জুলুম করতে পারেন না

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.