Home জাতীয় যাদের রক্তস্নাত ত্যাগে ভারত স্বাধীন হল সেই মুসলমানদেরকেই নিপীড়ন ও উৎখাতের ষড়যন্ত্র...

যাদের রক্তস্নাত ত্যাগে ভারত স্বাধীন হল সেই মুসলমানদেরকেই নিপীড়ন ও উৎখাতের ষড়যন্ত্র হচ্ছে: আল্লামা কাসেমী

2

উম্মাহ প্রতিবেদক: ভারতে মুসলমানদের উপর নির্যাতন, পিটিয়ে হত্যা, গো-রক্ষকদের হামলা, ইবাদত-বন্দেগী ও ধর্ম পালনে বাধাদান, নাগরিক পঞ্জির নামে মুসলিম উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র এবং হিন্দুত্ববাদি স্লোগান ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বাধ্য করাসহ বহুমুখী সাম্প্রদায়িক হামলা ও নিপীড়নের প্রতিবাদে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ গতকাল (৪ জুলাই) বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে।

এতে শরীক ছিলেন দলের মহাসচিব শায়খুল হাদীস আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, সহ-সভাপতি বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ আল্লামা আব্দুর রব ইউসুফী, যুগ্মমহাসচিব মাওলানা ফজলুল করীম কাসেম, প্রচারসম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন, দপ্তর সম্পাদক মাওলানা আব্দুল গাফফার, ঢাকা মহানগর সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা বশিরুল ইসলাম খাদিমানী, মাওলানা কলিমুল্লাহ, মাওলানা গোলাম মাওলা, ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা এখলাছুর রহমান, ছাত্র নেতা মাওলানা আব্দুল হামিদ, মাহফুজুর রহমান, আতাউর রহমান, বশির আহমদ প্রমুখ।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, দীর্ঘ বৃটিশ পরাধীনতার নাগপাশ থেকে সমগ্র ভারত বর্ষকে স্বাধীন করার লড়াইয়ে মুসলমানরাই ময়দানে সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ ও প্রাণ বিসর্জন দিয়েছিলেন। যে মুসলমানদের রক্তের সিঁড়ি বেয়ে ভারত স্বাধীন হয়েছে, আজ ভারতে সেই মুসলমানদেরকেই নিপীড়নের শিকার এবং উৎখাতের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। এর চেয়ে বড় গাদ্দারি, নিমকহারামি ও জুলুম আর কিছু হতে পারে না।

তিনি বলেন, ভারতের হিন্দুত্ববাদি বিজেপি ও গোরক্ষকরা অত্যন্ত জঘন্য কায়দায় মুসলমানদের উপর বর্বরোচিত সাম্প্রদায়িক হামলাসহ তাদের মানবাধিকার ও নাগরিক অধিকার হরণ করছে প্রতিনিয়ত। প্রকাশ্য রাজপথে উল্লাস নৃত্য করে মুসলমানদেরকে পিটিয়ে খুন করা হচ্ছে। এমনকি তাদের নাগরিকত্ব হরণের মতো ধৃষ্টতামূলক ষড়যন্ত্রে ভারত সরকার জড়িয়ে পড়েছে। আমরা এসব মানবতাবিরোধী নিষ্ঠুর আচরণের নিন্দা জানাই এবং অনতিবিলম্বে এসব বন্ধের দাবি জানাই।

জমিয়ত মহাসচিব বলেন, আমরা বাংলাদেশের মুসলমানরা ভারতের নির্যাতিত মুসলমানদের সাথে পূর্ণ সংহতি প্রকাশ করছি। ভারতের মুসলিম নিপীড়ন ও মানবাধিকার হরণ বন্ধে আমরা বাংলাদেশ সরকারের জোর কূটনৈতিক তৎপরতার দাবি জানাই। পাশাপাশি জাতিসংঘ, ওআইসি’সহ বিশ্বসম্প্রদায়ের প্রতিও দায়িত্বশীল পদক্ষেপ নিতে উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।

জমিয়ত সহসভাপতি আল্লামা আব্দুর রব ইউসুফী বলেন, ভারতে হিন্দুত্ববাদিরা সেই দেশের মুসলমানদের উপর সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে অত্যাচার ও নিপীড়ন চালাচ্ছে। তাদের এই নিপীড়ন, নির্যাতন দিন দিন বাড়িয়ে চলেছে। ভারতীয় আইনশৃঙ্খলাবাহিনী এসব নিপীড়নের কাজে সহযোগিতা ও উস্কানী দিচ্ছে। আর এসব কিছু হচ্ছে নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপির সরকারের সহযোগিতা ও সমর্থন নিয়ে।

তিনি বলেন, এমন পরিস্থিতিতে আমরা ভারতের নির্যাতিত মুসলমানদের প্রতি পূর্ণ সহংহতি প্রকাশ করছি এবং ভারতীয় মুসলমানদের বিরুদ্ধে হিন্দুত্ববাদিদের এসব নির্যাতন, নিপীড়ন ও মানবতাবিরোধী অপরাধের কঠোর নিন্দা জানাচ্ছি। আমরা ভারত সরকারের প্রতি অবিলম্বে এসব মুসলিম নির্যাতন ও উৎখাতের ষড়যন্ত্র বন্ধের দাবি জানাই। সেই সাথে সমগ্র বিশ্বের মানবতাবাদিদের প্রতি নির্যাতিত ভারতীয় মুসলমানদের পাশে দাঁড়ানোর এবং হিন্দুত্ববাদিদের মানবতার বিরুদ্ধে এসব আগ্রাসন বন্ধে সোচ্চার প্রতিবাদের শামিল হতে আহ্বান জানাই।

আল্লামা ইউসুফী বলেন, আমরা ভারতের মানবতাবাদি জনসাধারণের প্রতি এবং বিশ্বের দেশে বসবাসকারী ভারতীয়দের প্রতি এসব জুলূম-অত্যাচার বন্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানাই। বাংলাদেশে বসবাসকারী হিন্দু ভাইদের প্রতিও নিশ্চুপ না থেকে ভারতীয় মুসলমানদের উপর হিন্দুত্ববাদিদের এসব সাম্প্রদায়িক আক্রমণের বিরুদ্ধে কঠোর নিন্দা ও প্রতিবাদে শামিল হতে আহ্বান জানাই। আমরা সকল ধর্মাবলম্বীদের সাথে সামাজিক সহাবস্থান এবং সামাজিক সুসম্পর্ক বজায় রেখে একটা সুন্দর ও সুশৃঙ্খল পৃথিবী গড়তে চাই।

মানববন্ধনে জমিয়তের কেন্দ্রীয় যুগ্মমহাসচিব মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী বলেন, ভারতীয় মুসলমানগণ দীর্ঘ লড়াই, সংগ্রাম ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে ইংরেজকে বিতাড়িত করে ভারতকে স্বাধীন করেছে। অনুরূপ বর্তমানে ভারতীয় হিন্দুত্ববাদিরাও যদি মুসলমানদের উপর অন্যায় জুলুম, অত্যাচার ও নিপীড়ন চালাতে থাকে, তাহলে ভারতীয় মুসলমানদের সেই সৌর্যবীর্য এখনো অটূট আছে যে, হিন্দুত্ববাদি নিপীড়কদের হাত থেকে ভারতকে মুক্ত করে একটা সভ্য ও সহনশীল সমাজ গড়ার।

জমিয়তের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন বলেন, ভারত একটি বড় দেশ। সেই দেশে হিন্দুদের তুলনায় সংখ্যায় মুসলমানরা কম। কিন্তু যেভাবে মুসলমানদের উপর নির্যাতন করা হচ্ছে, মনে হচ্ছে যেন মুসলমানরা কোন মানুষই না। এই আমানবিক মুসলিম নির্যাতন সেই দেশে হিন্দুত্ববাদ ও আধিপত্যবাদের চিন্তা-চেতনার প্রকাশ ছাড়া কিছু নয়। এমন আগ্রাসী মনোভাব ভারত রাষ্ট্রের জন্যও কল্যাণকর বলে আমরা মনে করি না। আমরা ভারত সরকারের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাব, অবিলম্বে মুসলমানদের বিরুদ্ধে পরিচালিত মানবতাবিরোধী কার্যকলাপ ও জুলুম-নিপীড়ন বন্ধ করুন। অন্যথায় এটা ভারতের সমাজ ব্যবস্থাকে খান খান করে ভেঙ্গে দিবে। যেটা ভারত রাষ্ট্রের জন্য সুখকর হবে না।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে দলটির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে শত শত নেতাকর্মীও শরীক হন। তাদের হাতে তিনটি ব্যানারসহ ভারতীয় মুসলমানদের নির্যাতন বন্ধের দাবি সম্বলিত ইংরেজী ও বাংলায় স্লোগান লেখা অসংখ্য ফেস্টুন শোভা পাচ্ছিল। মানববন্ধন কর্মসূচী এক ঘণ্টা স্থায়ী হয় এবং সবশেষে জমিয়ত সহসভাপতি আল্লামা আব্দুর রব ইউসুফীর মুনাজাত পরিচালনার মাধ্যমে কর্মসূচী শেষ হয়।