Home আন্তর্জাতিক ‘ভারতকে চরম মূল্য দিতে হবে’: পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে ইমরান খানের হুঁশিয়ারী

‘ভারতকে চরম মূল্য দিতে হবে’: পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে ইমরান খানের হুঁশিয়ারী

0
আজাদ কাশ্মীরের আইন পরিষদের এক বিশেষ অধিবেশনে বক্তব্য রাখছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ছবি- সংগৃহীত।

উম্মাহ অনলাইন: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, অধিকৃত কাশ্মীরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পদক্ষেপ একটি ‘কৌশলগত ভুল’ আর এজন্য তাকে ‘চরম মূল্য দিতে হবে।’ পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গতকাল বুধবার আজাদ কাশ্মীরের রাজধানী মুজফফরাবাদে যান এবং সেখানকার আইন পরিষদের এক বিশেষ অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন। সেখানে তিনি এসব কথা বলেন বলে বিবিসির মনিটরিং বিভাগ জানাচ্ছে।

‘নরেন্দ্র মোদি কৌশলগতভাবে ভুল করেছেন। তিনি তার শেষ কার্ডটি আগেই খেলে ফেলেছেন। তারা এখন কাশ্মীরকে আন্তর্জাতিক ইস্যু বানিয়ে ফেলেছে,’ তার ভাষণে বলেন জনাব খান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ভারতের সংবিধান থেকে কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেয়া অনুচ্ছেদ ৩৭০’র বিলোপ এবং ঐ রাজ্যের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয়ার প্রতি ইঙ্গিত করছিলেন। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজেকে কাশ্মীরের একজন প্রতিনিধি হিসেবে বর্ণনা করে ইমরান খান ভারতের তরফে তার ভাষায়, যে কোন দুর্ঘটনার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি জানান।

পাকিস্তানের রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা এপিপি খবর দিচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী খান তার ভাষণে কাশ্মীরের আইন পরিষদকে জানিয়েছেন যে, ভারত আজাদ কাশ্মীরে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে। ভারতের তরফে যে কোন হুমকি মোকাবেলার জন্য পাকিস্তানের সরকার এবং সামরিক বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে বলে ইমরান খান আইন পরিষদকে জানান।

অন্যান্য বছরের তুলনায় পাকিস্তান এবার তার স্বাধীনতা দিবসকে ভিন্নভাবে উদযাপন করছে। এই দিনটিকে তারা ‘কাশ্মীর সংহতি দিবস’ হিসেবে পালন করছে।

এ উপলক্ষে সরকারের তরফ থেকে নতুন একটি লোগো প্রকাশ করা হয়েছে যাতে লেখা হয়েছে ‘কাশ্মীর বনেগা পাকিস্তান’ অর্থাৎ কাশ্মীর হবে পাকিস্তান। সে দেশের প্রধান টেলিভিশন চ্যানেলগুলোও তাদের পর্দায় এই লোগো ব্যবহার করছে।

এবারের ঈদ এবং স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে পাকিস্তানের টিভি চ্যানেলগুলোতে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করা হচ্ছে না বলে বিবিসির উর্দু বিভাগ জানাচ্ছে। আজ ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে পাকিস্তান কালো দিবস হিসেবে পালন করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ সময় সরকারি বেসরকারি ভবনগুলোতে পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে বলে সরকারি কর্মকর্তারা জানাচ্ছেন।

ভারত সরকারের বক্তব্য পরিবর্তন!

অধিকৃত কাশ্মীরকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার পর ৯ আগস্ট শুক্রবার হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভ প্রকাশ করার একটি ভিডিও ফুটেজ বিবিসি’র হাতে আসে, যেটিকে ভারত সরকার দাবি করে যে, সেরকম কোনো বিক্ষোভ আসলে হয়নি। ১০ আগস্ট ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষে থেকে টুইট করে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত ঐ ভিডিওগুলোকে অতিরঞ্জিত বলা হলেও ১৩ আগস্ট আরেকটি টুইটে শ্রীনগরের সাওরা অঞ্চলে হওয়া বিক্ষোভের বিষয়টি স্বীকার করা হয়।

কাশ্মীরে ভারতীয় সিদ্ধান্ত ‘একতরফা’: চীন

কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সিদ্ধান্ত ‘একতরফা’ বলে জানিয়েছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গত সোমবার একটি ক‚টনীতিক বৈঠকে শেষে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এই তথ্য জানায় দেশটি। এর আগে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন ক‚টনীতিক ওয়াং ইয়ের সঙ্গে সোমবার বৈঠক করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। বৈঠকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন ক‚টনীতিক ওয়াং ইয়ে বলেন, চীন আশা করে ভারত আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষায় গঠনম‚লক ভ‚মিকা নেবে।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন, ভারত সংযত থাকতে এবং পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নত করতে ইচ্ছুক। গত ৫ আগস্ট ভারতের সংবিধান থেকে কাশ্মীর রাজ্যের স্বায়ত্বশাসন দানকারী ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা হয়েছে। এর ফলে ভারত সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের স্বায়ত্ত¡শাসন কেড়ে নেয় এবং এলাকাটিকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার সিদ্ধান্ত জানায়। এরপরই ভারতের এ উদ্যোগকে একতরফা ও অবৈধ আখ্যা দিয়ে এর কড়া প্রতিবাদ জানায় পাকিস্তান। একসঙ্গে ভারতের পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছে চীন। সূত্র: বিবিসি বাংলা, নিউজ১৮, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন উর্দু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.