Home গল্প-উপন্যাস আবরার হত্যার প্রতিবাদে খেলাফত মজলিসের মানববন্ধন

আবরার হত্যার প্রতিবাদে খেলাফত মজলিসের মানববন্ধন

0

উম্মাহ প্রতিবেদক: খেলাফত মজলিসের যুগ্মমহাসচিব শেখ গোলাম আসগর বলেছেন, দেশের স্বার্থবিরোধী সকল চুক্তি বাতিল করতে হবে। সরকার প্রধান শুধুমাত্র নিজের ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার জন্যে ভারতের কাছে বাংলাদেশের স্বার্থ বিকিয়ে দিচ্ছেন। ভারতের সাথে দেশের স্বার্থবিরোধী চুক্তির বিরোধীতা করায় বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। আবরারের খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, তিস্তার পানির সুষ্ঠু বন্টন না হওয়া পর্যন্ত ভারতকে ফেনী নদীর এক ফোটা পানিও জনগণ ভারতকে দিবে না। বাংলাদেশের বন্দর, রেল লাইন ব্যবহার করতে দেয়া হবে না। বাংলাদেশের উপকূলে ভারতের রাডার বসাতে দেয়া হবে না। ভারতীয় আধিপত্যবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার হত্যার প্রতিবাদে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আজ (শুক্রবার) সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সমানে ঢাকা মহানগরী সভাপতি শেখ গোলাম আসগরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাওলানা আজীজুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান বক্তা ছিলেন সংগঠনের যুগ্মমহাসচিব মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, খন্দকার সাহাব উদ্দিন আহমদ, তাওহিদুল ইসলাম তুহিন, মুহাম্মদ আবুল হোসেন, প্রকৌশলী আবদুল হাফিজ খসরু, হুমায়ুন কবির আজাদ, হাজী হারুনূর রশীদ, কাজী আরিফুর রহমান, এ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ, মুফতি সাইফুল হক, মাওলানা সেরদার নেয়ামত উল্লাহ, ছাত্র মজলিস নেতা মুহাম্মদ শাহিন, কে এম ইমরান হোসাইন, আহসান আহমদ খান, উসমান বিন সালমান প্রমুখ।

প্রধান বক্তা মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী বলেন, দেশের মেধাবী ছাত্ররা ছাত্রলীগের সংস্পর্শে এসে সন্ত্রাসীতে পরিণত হচ্ছে। এরা বুয়েট ছাত্র আবরারের মত নম্র ও মেধাবী ছাত্রকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। তাই যাদের সংস্পর্শে এসে মেধাবী ছাত্ররা সন্ত্রাসী বনে যাচ্ছে দেশে যাচ্ছে তাদের রাজনীতে চলতে পারে না। আর অমীমাংসিত সমস্যাগুলোর সমাধান হওয়ার আগ পর্যন্ত ভারতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে কোন সুবিধা দেয়া যাবে না।

অনুষ্ঠানে আবরার ফাহাদের রুহের মাগফিরাত কমনা করে ও শহীদী দরজা বুলন্দের জন্যে বিশেষ দোয়া মুনাজাত করা হয়। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.