Home জাতীয় জাবি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ: ছাত্রলীগের প্রতি ভিসি ফারজানার কৃতজ্ঞতা

জাবি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ: ছাত্রলীগের প্রতি ভিসি ফারজানার কৃতজ্ঞতা

0

ডেস্ক রিপোর্ট: আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার পরিপ্রেক্ষিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) প্রশাসনিক ও শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি গতকাল (মঙ্গলবার) বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের আবাসিক হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গতকাল দুপুরে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের সভাপতিতত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনে অনুষ্ঠিত জরুরি সিন্ডিকেটের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।  বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার  (ভারপ্রাপ্ত) ও সিন্ডিকেট সচিব রহিমা কানিজ ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে দুর্নীতির অভিযোগে উপাচার্য ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালায়। হামলায় শিক্ষার্থী, সাংবাদিকসহ অন্তত ৩০ জনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।


জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর শাখা ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ । ছবি- সংগৃহীত।

এদিকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে ‘মুক্ত’ করাকে ‘গণঅভ্যুত্থান’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। এ জন্য তিনি শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। শাখা ছাত্রলীগের প্রতিও বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের কনফারেন্স রুমে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন উপাচার্য।

তিনি এ সময় বলেন, “আন্দোলনকারীরা তিন মাস থেকে বিভিন্নভাবে বাধা দিচ্ছে। আমাদের চিন্তা করতে হবে কারা, কেন, কীভাবে ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে বিশ্ববিদ্যালয়কে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যেতে চায়। একটা মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে আমাকে অসম্মান ও অপদস্থ করা হয়েছে। কিন্তু এটা করা হয়েছে কোনও প্রমাণ ছাড়াই। যদি কোনও প্রমাণ থাকে, যদি প্রমাণ পায়, তাহলে যা বিচার হবে তা মেনে নেব।”

তিনি আরও বলেন, “সংবাদমাধ্যমকে তারা অনবরত মিথ্যা তথ্য দিয়েছে, মিথ্যা বলেছে। দেশের একটা জাগরণের সুযোগ এসেছে যে আমরা সত্য কথা বলার সুযোগ পাব কিনা। আজ মানুষের জেগে ওঠা আমরা দেখেছি। আমার সহকর্মী কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সব ছাত্রছাত্রী বিশেষ করে ছাত্রলীগের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। কারণ তারা দায়িত্ব নিয়ে এ কাজটি করেছে। এখন সুষ্ঠুভাবে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার জন্য সবাই আমাকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবেন।”

সাংবাদিকদের ব্রিফিং শেষে জরুরি সিন্ডিকেট সভায় অংশ নেন উপাচার্য। যেখানে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.