Home রাজনীতি জমিয়তের কর্মী সম্মেলনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন: প্রেস ব্রিফিংয়ে মাওলানা ইউসুফী

জমিয়তের কর্মী সম্মেলনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন: প্রেস ব্রিফিংয়ে মাওলানা ইউসুফী

0
প্রেস বিফ্রিং অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য দিচ্ছেন মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী। ছবি- উম্মাহ।

শতাব্দি প্রাচীন ইসলামী রাজনৈতিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কর্মী সম্মেলন করবে। এ উপলক্ষ্যে দলটির তরফ থেকে সার্বিক প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন।

ইতিমধ্যেই কর্মী সম্মেলন সফল করতে জোরদার গণসংযোগ ও কর্মীদের মধ্যে উদ্দীপনা তৈরির লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে দেশব্যাপী সাংগঠনিক সফর ও মতবিনিময় বৈঠকের কাজ শেষ হয়েছে।

মাঠ পর্যায়ের প্রস্তুতিও প্রায় শেষ এমনটাই উম্মাহ ২৪ ডটকমকে জানিয়েছেন সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক ও দলের সহসভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী।

কর্মী সম্মেলনের নিউজ সংগ্রহ ও সুন্দর মিডিয়া কভারেজের জন্য জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র কর্মী সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির তরফ থেকে আজ দলের পল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আজ (১২ ফেব্রুয়ারী) বুধাবার দুপুর ১২টায় গণমাধ্যম কর্মীদেরকে নিয়ে এক প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করা হয়।

এতে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকা, অনলাইন গণমাধ্যম ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা শরীক হন।

কর্মী সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক ও জমিয়ত সহসভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফীর সভাপতিত্বে প্রেস বিফিং অনুষ্ঠানে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের আরো উপস্থিত ছিলেন- প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি নাসির উদ্দিন খান, দপ্তর সম্পাদক মাওলানা আব্দুল গাফফার ছয়গরী, কেন্দ্রীয় সদস্য মাওলানা মুনির আহমদ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর প্রচার সম্পাদক মুফতী ইমরানুল বারী সিরাজী ও ঢাকা মহানগর সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতী জাবের কাসেমী প্রমুখ।

পবিত্র কুরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরুর পর উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন মুফতি নাসির উদ্দিন খান। তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে কর্মী সম্মেলনের সুন্দর মিডিয়া কভারেজের জন্য সহযোগিতা চান।

মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী। তিনি শুরুতেই সংক্ষেপে জমিয়তের প্রতিষ্ঠাকালীন প্রেক্ষাপট, সংক্ষিপ্ত পরিচিতি এবং লক্ষ্য উদ্দেশ্য তুলে ধরে বলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম আল্লাহর যমীনে আল্লাহ’র বিধিবিদ্ধ নেজাম প্রতিষ্ঠার মহান লক্ষ্য-উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই কাজ করছে। দেশের সর্বস্তরে ইনসাফ, সমতা, সুবিচার, গণমানুষের ন্যায্য অধিকার এবং সহনশীল ও শান্তিপূর্ণ শক্তিশালী সমাজ ও দেশ গড়াই জমিয়তের মূল লক্ষ্য-উদ্দেশ্য।

তিনি বলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম স্বচ্ছ ও শান্তিপূর্ণ রাজনীতিতে বিশ্বাসী একটি সুশৃঙ্খল রাজনৈতিক দল।

মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী বলেন, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষায় দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে ,গুম খুন ও জুলুম-নির্যাতন শোষণমুক্ত সমাজ গড়তে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধানে, ইসলামের অবমাননার সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান প্রণয়ন, কাদিয়ানিদের অমুসলিম ঘোষণায় জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায় সর্বোপরী ইসলামী শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয় আমরা কর্মীদের সামনে তুলে ধরবো এবং এই লক্ষ্যে আত্মত্যাগী ও সেবার মানসিকতার পাশাপাশি আল্লাহকে রাজি-খুশির মহৎ নিয়্যাতকে সামনে রেখে কাজ করে যেতে আমরা কর্মীদের উদ্বুব্ধ করবো।

তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে জমিয়তের এসব মহৎ লক্ষ্য-উদ্দেশ্য এবং কর্মী সম্মেলনে নেতৃবৃন্দের উপস্থাপিত বক্তব্য ও অন্যান্য খবরাখবর যথাযথভাবে নিউজ আকারে প্রচার-প্রসারের জন্য পূর্ণ সহযোগিতা কামনা করেন।

মাওলানা ইউসুফী দেশ ও জাতি গঠন এবং সর্বস্তরে ন্যায়-ইনসাফ, সুবিচার, মানবাধিকার, শান্ত ও সুবিচার প্রতিষ্ঠায় সহযোগি হয়ে কাজ করে যাওয়ার উপর মিডিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, জমিয়তে উলাময়ে ইসলাম বাংলাদেশও এই মহৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নেই কাজ করে যাচ্ছে। সুতরাং জমিয়তের কর্মী সম্মেলনের কার্যক্রম ব্যাপক প্রচার-প্রসারে আমরা আশাকরি গণমাধ্যম কর্মীদের পূর্ণ সহযোগিতা পাব।

সমাপনী বক্তব্য দেন দলের প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন। তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমরা কৃতজ্ঞতার সাথে আপনাদের অতীত সহযোগিতাকে স্মরণ করি। আমরা আশা করছি, ১৪ তারিখের কর্মী সম্মেলনের ব্যাপক মিডিয়া কভারেজের মাধ্যমে আপনাদের এই সহযোগিতাদান আগামীতে উত্তরোত্তর আরো বৃদ্ধি পাবে।

নেতৃবৃন্দের বক্তব্য শেষে উপস্থিত ইনসাফ সম্পাদক সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কর্মী সম্মেলনের প্রশাসনিক অনুমতি হয়েছে কিনা জানতে চান। উত্তরে মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী বলেন, আমরা সার্বক্ষণিক পুলিশ প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে আসছি। তাদের তরফ থেকে নেতিবাচক কোন বক্তব্য আমরা এখনো পাইনি। লিখিত অনুমতি আশা করছি আজ সন্ধ্যার মধ্যেই পেয়ে যাব ধরে নিয়েই সার্বিক প্রস্তুতি শেষ করতে যাচ্ছি।

ইনসাফ সম্পাদক আরো জানতে চান, অনুমতি শেষ পর্যন্ত চূড়ান্তভাবে না মিললে তখন কী করবেন? মাওলানা ইউসুফী জানান- কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবেই, ইনশাআল্লাহ। প্রশাসন থেকেও বাধা দিবে এমন আলামত আমরা এখনো দেখিনি। তবে চূড়ান্ত পর্যায়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি না পেলেও আমরা পাশ্ববর্তী সুবিধামতো কোন একটা জায়গায় সম্মেলন করবোই, ইনশাআল্লাহ। আমাদের যে প্রস্তুতি, তাতে এতে একটু পিছিয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই।

উম্মাহ ২৪ ডট কম সম্পাদক মুনির আহমদ কর্মী সম্মেলনে কী পরিমাণ উপস্থিতি হতে পারে জানতে চাইলে মাওলানা ইউসুফী বলেন, দেশব্যাপী গণসংযোগের সময় কর্মীদের মাঝে আমরা যে পরিমাণ উৎসাহ ও আগ্রহ লক্ষ্য করেছি, তাতে আমরা আশাবাদি ন্যূনতম ২০ হাজার কর্মী সম্মেলনে জমায়েত হবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.