Home শীর্ষ সংবাদ করোনাভাইরাসে একদিনে মৃত্যু ২৪২ জনের: চীনে ভয়ালতম দিন

করোনাভাইরাসে একদিনে মৃত্যু ২৪২ জনের: চীনে ভয়ালতম দিন

0

উম্মাহ অনলাইন: চীনের হুবেই প্রবেশে বুধবার ২৪২ জনের মৃত্যুর ঘটনা রেকর্ড করা হয়েছে। বলা হচ্ছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর এটিই ভয়ালতম দিন। আক্রান্তের সংখ্যায়ও ব্যাপক উল্লম্ফন দেখা গিয়েছে। এদিন নতুন আক্রান্ত হয়েছে ১৪ হাজার ৮৪০ জন। বুধবারের আগ পর্যন্ত, চীনের হুবেই প্রদেশে সংক্রমণ পরিস্থিতিতে কিছুটা স্থিতিশীলতা লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। কিন্তু মৃতের নতুন এই সংখ্যা করোনাভাইরাসে মৃত্যুর মোট সংখ্যাকে ১৩৫০ এর উপরে নিয়ে গেলো। আর মোট আক্রান্তের সর্বশেষ সংখ্যা দাঁড়ালো ৬০ হাজার জন।

চীনে যত মানুষ সংক্রমিত হয়েছে তার ৮০ শতাংশই হুবেই প্রদেশে রয়েছে। এখন অবশ্য যাদের শরীরে রোগের লক্ষণ প্রকাশিত হচ্ছে তাদেরকেও সংক্রমিত হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। যাদের শরীরে করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা যাবে, এবং সিটি স্ক্যানের মাধ্যমে ফুসফুসের সংক্রমণ দেখা যাবে তাদেরকেও করোনাভাইরাস সংক্রমিত বলা হবে। এর আগে যথাযথ পরীক্ষা করে ভাইরাসের উপস্থিতি পেলেই তাকে সংক্রমিত বলা হতো। সম্ভবত নতুন এই সংজ্ঞায়নের কারণে আক্রান্তের সংখ্যার এই উল্লম্ফন একারণেই দেখা গেছে।

উহানে বুধবার মারা যাওয়া ২৪২ জনের মধ্যে ১৩৫ জনই ছিলো নতুন এই সংজ্ঞার অধীনে কোভিড-১৯ আক্রান্ত। নতুন এই করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদেরকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখন কোভিড-১৯ বলেই অভিহিত করছে। যার পূর্ণ রূপ হচ্ছে ‘করোনাভাইরাস রোগ ২০১৯’।

হুবেইতে এখন ৪৮ হাজার ২০৬ জন নিশ্চিত কোভিড-১৯ রোগী রয়েছে। প্রদেশটির নতুন আক্রান্ত ১৪ হাজার ৮৪০ জনের মধ্যে ১৩ হাজার ৩৩২ জনকেই নতুন সংজ্ঞার অধীনে সংক্রমিত বলা হচ্ছে।

অবশেষে বন্দর পেল জাহাজটি:

এদিকে, দু হাজার যাত্রী সমেত একটি প্রমোদতরীকে অবশেষে কম্বোডিয়ার বন্দরে ভিড়তে দেয়া হয়েছে। জাহাজটিতে করোনাভাইরাস সংক্রমিত মানুষ থাকতে পারে এই সন্দেহে পাঁচটি দেশের বন্দরে এটিকে ভিড়তে না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছিলো।

বৃহস্পতিবার সকালে কম্বোডিয়ায় ভেড়ে এমএস ওয়েস্টারড্যাম। জাপান, তাইওয়ান, গুয়াম, ফিলিপিন্স এবং থাইল্যান্ড এটিকে ফিরিয়ে দিয়েছে। যদিও জাহাজটিতে একজনও কোভিড-১৯ রোগী নেই।

আমেরিকান নাগরিক অ্যাঙ্গেলা জোনস বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন,‘আমরা কতবার ভেবেছি, এই বুঝি বাড়ি যেতে পারবো, আর সেইসব মুহূর্তে আমাদের ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে’।

‘আজকের সকালটাতেও যখন ডাঙার দেখা পেয়েছিলাম, সেটা ছিল একটি শ্বাসরুদ্ধকর মুহূর্ত। আমি ভাবছিলাম, এটা কি সত্যি!’ বলছিলেন তিনি।

জাহাজটিকে আশ্রয় দেয়ার সিদ্ধান্তের জন্য কম্বোডিয়ার প্রশংসা করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান। সূত্র- বিবিসি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.