Home আন্তর্জাতিক চুক্তির দ্বারপ্রান্তে যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান: আফগান প্রেসিডেন্টের তথ্য

চুক্তির দ্বারপ্রান্তে যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান: আফগান প্রেসিডেন্টের তথ্য

0
আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি।

উম্মাহ অনলাইন: আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে আলোচনা অচলাবস্থা নিরসনের কাছাকাছি পৌছে গেছে বলে মনে করেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। আলোচনায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে বলে বুধবার জানিয়েছেন তিনি।

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের হাজার হাজার সেনা প্রত্যাহার নিয়ে জটিল আলোচনায় এক বছরের বেশি সময় পার করেছে ওয়াশিংটন ও তালেবান আন্দোলন। সেনা প্রত্যাহারের বিনিময়ে তালেবানদের কাছে বিভিন্ন ধরনের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা চায় যুক্তরাষ্ট্র। পাশপাশি কাবুল সরকারের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় বসতেও তালেবানকে চাপ দেয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার দফায় দফায় টুইটে ঘানি বলেন যে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও আলোচনায় অগ্রগতি সম্পর্কে জানাতে তাকে টেলিফোন করেছেন। দোহায় এই আলোচনা চলছে।

ঘানি তার অফিসিয়াল টুইটার একাউন্টে লিখেন, আজ আমি সেক্রেটারি পম্পেওর কাছ থেকে ফোন পেয়েছি। তিনি জানিয়েছেন যে তালেবানের সঙ্গে চলা আলোচনায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে।

টুইটে ঘানি আরো বলেন: সহিংসতা অবসানের লক্ষ্যে তালেবানের প্রস্তাব সম্পর্কে সেক্রেটারি আমাকে জানিয়েছেন। এটা খুশি হওয়ার মতো অগ্রগতি এবং শান্তির পক্ষে আমাদের মৌলিক অবস্থান ফল দিতে শুরু করেছে। অনর্থক রক্তপাত বন্ধই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তালেবানের শান্তি আলোচনা বার বার চালু ও স্থগিত হওয়ার ধারা চলতে থাকে।

বুধবার দোহায় আবারো তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের আলোচক দলের মধ্যে বৈঠক হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে তালেবানের একটি সূত্র।

আফগান ও মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায় যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শর্ত সাপেক্ষে তালেবানের সঙ্গে চুক্তি অনুমোদন করেছেন।

এর আগেও গত সেপ্টেম্বরে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী পক্ষ অচলাবস্থা নিরসনের কাছাকাছি পৌছে গিয়েছিলো। তবে ট্রাম্প শেষ মুহূর্তে আলোচনা বাতিল করেন।

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায় ট্রাম্প কেবল তখনই চূড়ান্ত অনুমোদন দেবেন তালেবান যদি এই মাসের শেষ সাত দিন সহিংসতা কমানোর ব্যাপারে স্থির থাকে।

এতে তালেবানরা রাজি হয়েছে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে।

তিনি বলেন, এটা সবদিক দিয়েই হবে একটি যুদ্ধ বিরতি। তবে নানা জটিলতার কারণে একে যুদ্ধবিরতি বলা হবে না।

তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে আলোচনা চললেও ২০১৯ সালটি ছিলো অন্যতম সহিংস বছর।সূত্র- এএফপি, এসএএম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.