Home জাতীয় ইসলামের দর্শন বিশ্বের সকল মানুষের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করে: আল্লামা কাসেমী

ইসলামের দর্শন বিশ্বের সকল মানুষের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করে: আল্লামা কাসেমী

- আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী।

আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেছেন, মানবিক সম্পর্কের বিষয়ে ইসলামের বিধান সুস্পষ্ট। পবিত্র কুরআনের সূরায়ে নিসার প্রথম আয়াতে আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন, “হে মানব সমাজ! তোমরা তোমাদের পালনকর্তাকে ভয় কর, যিনি তোমাদেরকে এক ব্যক্তি থেকে সৃষ্টি করেছেন এবং যিনি তার থেকে তার সঙ্গীনীকে সৃষ্টি করেছে, আর বিস্তার করেছেন তাদের দু’জন থেকে অগণিত পুরুষ ও নারী”।

শতবর্ষী ইসলামী রাজনৈতিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর উদ্যোগে আজ (২৩ নভেম্বর) সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে “সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় আমাদের করণীয়” শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী এসব কথা বলেন।

বৈঠকে আল্লামা কাসেমী আরো বলেন, আল্লাহ পাক হযরত আদম (আ.) ও হাওয়া (আ.) থেকে সমগ্র মানবজাতিকে সৃষ্টি করেছেন। পবিত্র কুরআনের দৃষ্টিভঙ্গি এটা সুস্পষ্ট করে দেয় যে, সারা বিশ্বের মানুষ একই বংশ ও রক্ত-মাংস থেকে সৃষ্টি। তাই সারা বিশ্বের মানুষের মৌলিক অধিকার, জানের নিরাপত্তা, মালের নিরাপত্তা, আব্রু-ইজ্জতের নিরাপত্তা পাওয়ার বৈধ অধিকার রয়েছে। ধর্ম, বর্ণ ও ভাষার পার্থক্যের কারণে এসব মানবিক মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার মধ্যে কোনরূপ তারতম্য করা যাবে না। যে কোন মানুষের মৌলিক মানবাধিকার, ইনসাফ ও সুবিচার পাওয়ার ক্ষেত্রে বর্ণ কি, ভাষা কি, ধর্ম কি; এমন প্রশ্ন তুলে বৈষম্য করা যাবে না। সাধারণ মানবিক মৌলিক অধিকার পাওয়ার ক্ষেত্রে সকলেই সমভাবে বিবেচ্য হবে, ‘মানুষ’ এই পরিচয়টাই ধর্তব্য হবে। কারণ, ইসলামে প্রতিটি মানুষের জীবনের নিরাপত্তা রয়েছে, ধন-সম্পদের নিরাপত্তা রয়েছে, আব্রু-ইজ্জতের নিরাপত্তা রয়েছে, ধর্মীয় স্বাধীনতা রয়েছে।

তিনি বলেন, বিদায় হজ্বে আল্লাহর হাবীব (সা.) সুস্পষ্ট ভাষায় বলেছেন, হে আমার সাহাবীগণ, আজকের এই দিন, এই মাস, এই শহর যেমনিভাবে সুরক্ষিত ও নিরাপদ, তেমনিভাবে প্রতিটি মানুষের জান-মাল ও আব্রু-ইজ্জত রক্ষা করতে হবে। কারো জানের ক্ষতি করা যাবে না, কারো মালের ক্ষতি করা যাবে না, কারো আব্রু-ইজ্জতের ক্ষতি করা যাবে না। ইসলামের এই দর্শন বিশ্বের সকল মানুষের নিরাপত্তাকে সুনিশ্চিত করে।

আল্লামা কাসেমী বলেন, সরকারের দায়িত্ব হচ্ছে, দেশে কারা সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে উস্কানী ও ষড়যন্ত্র করছে, তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় কঠোর শাস্তি দিয়ে শান্তি-শৃঙ্খলা ও সামাজিক সম্প্রীতিকে হুমকিমুক্ত রাখা। দেশের শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখার বিষয়ে আমরা পূর্ণ সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

আরও পড়তে পারেন-

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর সহসভাপতি আল্লামা আব্দুর রব ইউসুফীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মঞ্জরুল ইসলাম আফেন্দীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত গোলটেবিল বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন- নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর সহসভাপতি আল্লামা উবায়দুল্লাহ ফারুক, খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আব্দুল কাদের, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, মুসলিম লীগের মহাসচিব এডভোকেট কাজী আবুল খয়ের, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নায়বে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা মোস্তফা তারিকুল হাসান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া, মুফতি মুনির হোসাইন কাসেমী, খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নাজমুল হাসান, প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন, ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা এখলাছুর রহমান রিয়াদ প্রমুখ।

উম্মাহ২৪ডটকম: এসএএ

উম্মাহ পড়তে ক্লিক করুন-
https://www.ummah24.com

দেশি-বিদেশি খবরসহ ইসলামী ভাবধারার গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে ‘উম্মাহ’র ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।