Home অর্থনীতি করমুক্ত আয়সীমা অপরিবর্তিত, ধনীর উপর বাড়ছে কর

করমুক্ত আয়সীমা অপরিবর্তিত, ধনীর উপর বাড়ছে কর

২০২১-২২ অর্থবছরে ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়সীমা আগের মতোই থাকছে।

তবে উচ্চ সম্পদশালী ব্যক্তির ‍উপর সারচার্জ বাড়ানো হয়েছে। যেসব ব্যক্তির সম্পদ ১০ লাখ টাকার কম তাদেরকে ১০% হারে কর দিতে হবে, যা আগের বছর ছিল ১৫%।

এরচেয়ে বেশি সম্পদশালীদের উপর কর আগের বছরের চেয়ে বাড়ানো হয়েছে। আগের বছর সম্পদকর সর্বোচ্চ ৩০% থাকলেও এবার বাড়িয়ে ৩৫% করা হয়েছে।  

করমুক্ত আয়সীমা

গত অর্থবছরের মতো করমুক্ত আয়সীমা তিন লাখ টাকা। তবে তৃতীয় লিঙ্গ, মহিলা করদাতা ও ৬৫ বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সের করদাতার করমুক্ত এই আয়সীমা সাড়ে তিন লাখ টাকা। আর প্রতিবন্ধী ব্যক্তি করদাতার করমুক্ত আয়সীমা সাড়ে চার লাখ টাকা।

প্রস্তাবিত বাজটে বলা হয়, করমুক্ত আয়সীমার পর পরবর্তী এক কোটি টাকা পর্যন্ত মোট আয়ের কর ৫%, পরবর্তী তিন কোটি টাকা পর্যন্ত ১০%, পরবর্তী চার কোটি টাকা পর্যন্ত ১৫%, পরবর্তী ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত ২০% এবং অবশিষ্ট মোট আয়ের উপর কর ২৫% করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়সীমা অপরিবর্তিত রাখার পরামর্শ দিয়েছেন।

জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী তার বাজেট বক্তব্য দেওয়ার সময় বলেন, “২০২০-২১ অর্থবছরে ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের করহার উল্লেখযোগ্যভাবে কমানোর কারণে ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ব্যক্তিশ্রেণির করদাতাদের জন্য বিদ্যমান করহার অপরিবর্তিত রাখার প্রস্তাব করছি”।

ব্যক্তিশ্রেণির করদাতার জন্য বিদ্যমান এই করহার তৃতীয় লিঙ্গের করদাতাদের জন্যও প্রযোজ্য বলে জানান অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, “তৃতীয় লিঙ্গের করদাতাদের জন্য সামাজিক আত্তীকরণের লক্ষ্যে বিশেষ বিধান চালুর পাশাপাশি তাদের করমুক্ত আয়সীমা ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করছি”। 

আরও পড়তে পারেন-

প্রস্তাবিত বাজেটে বলা হয়েছে, গেজেটভুক্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা করদাতার করমুক্ত আয়সীমা ৪.৭৫ লাখ টাকা। কোনো প্রতিবন্ধী ব্যক্তির পিতামাতা বা আইনানুগ অভিভাবকের প্রত্যেক সন্তানের ভরনপোষণের জন্য করমুক্ত আয়ের সীমা ৫০ হাজার টাকার বেশি হবে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তির পিতা ও মাতা উভয়েই করদাতা হইলে যেকোনো একজন এই সুবিধা ভোগ করবে। 

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এবং চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় অবস্থিত করদাতার ন্যূনতম করহার ৫ হাজার টাকা, অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৪ হাজার টাকা এবং সিটি কর্পোরেশন ব্যতীত করদাতার করহার তিন হাজার টাকা।

সারচার্জের ধাপ কমলো, বেশি সম্পদশালীদের কর বাড়লো

আগামী অর্থবছরের বাজেটে সারচার্জের ধাপ সাতটি থেকে কমিয়ে পাঁচটি করা হয়েছে। যাদের সম্পদের পরিমাণ বেশি তাদের উপর চাপানো হয়েছে করের বোঝা।
প্রস্তাবিত বাজেটে, ব্যক্তি করদাতার নীট পরিসম্পদ তিন কোটি টাকা পর্যন্ত সারচার্জ শূন্য।

নীট সম্পদের মূল্যমান তিন কোটি টাকার অধিক কিন্তু দশ কোটি টাকার অধিক না হইলে বা নিজ নামে একের অধিক গাড়ি বা কোনো সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৮০০০ বর্গফুটের অধিক আয়তনের গৃহ-সম্পত্তি রয়েছে এমন ব্যক্তিকে কর দিতে হবে ১০%।

নীট সম্পদের মূল্যমান দশ কোটি টাকার অধিক কিন্তু বিশ কোটি টাকার অধিক না হলে কর ২০%, ২০ কোটি টাকার বেশি কিন্তু পঞ্চাশ কোটি টাকার অধিক না হলে করহার ৩০% এবং নীট সম্পদ ৫০ কোটি টাকার বেশি হলে কর দিতে হবে ৩৫%। 

উম্মাহ২৪ডটকম: আইএএ

উম্মাহ পড়তে ক্লিক করুন-
https://www.ummah24.com

দেশি-বিদেশি খবরসহ ইসলামী ভাবধারার গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে ‘উম্মাহ’র ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।