Home অন্যান্য খবর পাকিস্তানে মার্কিন ঘাঁটি স্থাপনের প্রস্তাবে ইসলামাবাদের না

পাকিস্তানে মার্কিন ঘাঁটি স্থাপনের প্রস্তাবে ইসলামাবাদের না

ড্রোন। প্রতীকী ছবি।

মার্কিন প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা জেক সালিভান নিশ্চিত করেছেন যে, আফগানিস্তান যেন আর কখনও আমেরিকাকে আক্রমণ করার জন্য সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর ঘাঁটি না হয়ে উঠতে পারে, সেটি নিশ্চিত করার জন্য আমেরিকা পাকিস্তানের সাথে সামরিক, গোয়েন্দা ও কূটনৈতিক চ্যানেলগুলোতে আলোচনা করেছে। পাকিস্তানে ড্রোন ঘাঁটি স্থাপনে দেশটির ইচ্ছা সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে সোমবার একটি প্রেস ব্রিফিংয়ে সালিভান এ মন্তব্য করেন। তবে তিনি এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাননি।

মধ্য এবং দক্ষিণ এশিয়াতে আমেরিকা বর্তমানে একটি কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখী। রাশিয়ার প্রভাবের কারণে আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী মধ্য এশীয় রাষ্ট্রগুলো তাদের মাটিতে আমেরিকার উপস্থিতির বিষয়ে অনীহা প্রকাশ করছে এবং পাকিস্তানও এ ধরনের সুযোগ বাড়ানোর বিষয়ে আগ্রহী নয়। পাকিস্তান ও আমেরিকার মধ্যকার সম্ভাব্য চুক্তি সম্পর্কে মার্কিন গণমাধ্যমে যেসব রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে, ইসলামাবাদ বারবার সেসব অস্বীকার করেছে। তবে, ওয়াশিংটন পাকিস্তানের কোনও ড্রোন ঘাঁটি চাইছে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে সালিভান সোমবার সাংবাদিকদের জানান যে, তারা পাকিস্তানের সাথে বিষয়টি নিয়ে গোপনে আলোচনা করছিলেন।

সালিভান বলেন, ‘আফগানিস্তান যেন আর কখনও এমন ঘাঁটি না হয়ে উঠতে পারে যেখান থেকে আল-কায়েদা, আইএসআইএস বা অন্য কোনও সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আমেরিকাকে আক্রমণ করতে পারে, তা নিশ্চিত করতে আমেরিকার শক্তিমত্তার ভবিষ্যতের বিষয়ে পাকিস্তানের সাথে সামরিক, গোয়েন্দা, কূটনৈতিক মাধ্যমলিতে আমরা গঠনমূলক আলোচনা করেছি। তবে সুনির্দিষ্টতার কথা বলতে গেলে, এতে করে যা প্রতীয়মান হবে, তা নিজস্ব মাধ্যমগুলোর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে হবে কারণ আমরা তাদের মাধ্যমেই কাজ করব।’ তিনি আরো বলেন যে, আমেরিকা বেশ কয়েকটি দেশের সাথে একই উদ্দেশ্যে আলোচনা চালাচ্ছে।

আরও পড়তে পারেন-

সালিভানের এ বক্তব্য আবারও পাকিস্তানে বিতর্ককে উস্কে দিয়েছে যে, দেশটি ওয়াশিংটনের সাথে কোনো সমঝোতায় পৌঁছাবে কিনা। তবে, পাকিস্তানের এক প্রবীণ সরকারি কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনকে বলেছেন, আমেরিকাকে পাকিস্তানে কোনো ঘাঁটি স্থাপনের অনুমতি দেয়ার প্রশ্নই আসে না। দেশটি পাকিস্তানকে বোঝাতে কোনো কৌশলগত চাপ তৈরি করতে পারে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, অতীতে ওয়াশিংটন যে ধরনের সুবিধা ভোগ করেছে, এখন আর তা পাচ্ছে না।

সম্প্রতি পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরী জানিয়েছেন যে, পাকিস্তানে যেমন কোনো মার্কিন বিমান বা সামরিক ঘাঁটি নেই; তেমনি এ জাতীয় কোনো প্রস্তাবও বিবেচনা করা হয়নি। তিনি আমেরিকার বিষয়ে পাকিস্তানের অবস্থান স্পষ্ট করে বলেন, ‘২০০১ সাল থেকে এয়ার লাইন্স অফ কমিউনিকেশন (এএলওসি) এবং গ্রাউন্ড লাইন্স অফ কমিউনিকেশন (জিএলওসি) এর ক্ষেত্রে পাকিস্তান ও আমেরিকার মধ্যে সহযোগিতার অবকাঠামো রয়েছে। এ বিষয়ে নতুন কোন চুক্তি হয়নি।’ সূত্র- এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

উম্মাহ২৪ডটকম: এমএ

উম্মাহ পড়তে ক্লিক করুন-
https://www.ummah24.com

দেশি-বিদেশি খবরসহ ইসলামী ভাবধারার গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে ‘উম্মাহ’র ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।