Home ধর্মীয় প্রশ্ন-উত্তর ওয়ায-মাহফিলে সুরালো কণ্ঠের বয়ান সুন্নাতের পরিপন্থী হবে কি?

ওয়ায-মাহফিলে সুরালো কণ্ঠের বয়ান সুন্নাতের পরিপন্থী হবে কি?

0

প্রশ্নঃ আজকাল অধিকাংশ ওয়ায-মাহ্ফিলে ওয়ায়েযীন বা বক্তাগণ সুর করে ওয়ায করে থাকেন। এটা সুন্নাতের পরিপন্থী কিনা? হুযূর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ওয়ায-মাহ্ফিল কেমন ছিল?

– আব্দুল্লাহ্, ঠনঠনিয়া (১ম) লেন, বায়তুল মামুন মসজিদ, বগুড়া।

উত্তরঃ হাদীসের নির্ভরযোগ্য গ্রন্থাদি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সাহাবায়ে কেরামের সামনে জীবনে বহু ওয়ায-নসীহত করেছেন। কিন্তু সুর করে ওয়ায করেছেন- এমন কোন প্রমাণ পাওয়া যায় না। তদসত্ত্বেও কোন বক্তা যদি শ্রোতা ওয়াজ শ্রবণে অধিক মনোযোগী হবেন- এই নিয়্যাতে সুর করে ইখলাসের সাথে ওয়ায করেন, তাহলে নাজায়েয হবে না।

হাদীসের বিবরণ থেকে একথা প্রমাণ হয় যে, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ওয়ায-নসীহতের মাহ্ফিলগুলো হত সুশৃঙ্খল, নীরব ও সুশৃঙ্খল পরিবেশের। তাতে কোন প্রকার বেহুদা কথাবার্তা হত না এবং সাহাবায়ে কেরাম এমনভাবে শ্রোতা হিসেবে মনোযোগী হয়ে বসতেন, যেন মাথায় পাখী বসে আছে; নড়াচড়া করলেই পাখীটি উড়ে যাবে। পরিপূর্ণ আদবের সাথে তাঁরা মজলিশে বসতেন। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন ওয়ায-নসীহত করতেন তখন তাঁদের অন্তর একনিষ্ঠতার সাথে বয়ানের প্রতি নিবিষ্ট থাকত। তাঁদের চক্ষুযুগল থাকত অশ্রুসিক্ত। সূত্র- মিশকাত শরীফ-২/৪৫৪, ৪৫৬ পৃষ্ঠা।

জবাব লিখেছেনে- মুফতী মুনরি হোসাইন কাসমেী

ফাযেলে- দারুল উলূম দওেবন্দ (দাওরা ও ইফতা), মুফতী ও মুহাদ্দসি- জাময়িা মাদানয়িা বারধিারা, ঢাকা এবং উপদষ্টো সম্পাদক- উম্মাহ ২৪ডটকম।

নোটঃ উম্মাহ ২৪ডটকম এর প্রশ্ন-উত্তর বভিাগে আপনওি চাইলে প্রশ্ন পাঠাতে পারনে। প্রশ্ন অবশ্যই ইসলাম র্ধমবষিয়ক হতে হব। প্রশ্নরে আকার ছোট হতে হবে এবং একক বষিয়বস্তুর হতে হব। প্রশ্ন পাঠানোর জন্য [email protected] এই ইমইেল ঠকিানা ব্যবহার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.