Home কবিতা স্মৃতির ভেতর

স্মৃতির ভেতর

0

।। মালেকা ফেরদৌস ।।

[ এক ]

একটি মফস্বল শহরের টুকিটাকি
সুখ-দুঃখের কত কথা-
শরতের মেঘ হয়ে ভাসে, এখনও
তরঙ্গ তোলে অবিশ্রাম, আর আমি
হাঁটি পেছনে স্মৃতির ভেতর!
শান্ত তমালের ছায়া, টলমল পুকুরের জল
ঝাউসারি, নদী কীর্তনখোলা, লাল কৃষ্ণচূড়া-
বিকেলে ‘অক্ষরে’র কবিতা পাঠের আসর-
পেছনে কাদের ডাক? ‘মালেকা আপা’
কী উজ্জ্বল মিলান, আজাদ। বিবির পুকুর,
চেনা অচেনা কত অলিগলি প্রিয় শহর আমার!

[দুই]

স্বপ্নের মত একটি গ্রাম- চারিদিকে লতানো
নদীর শরীর, শিরীষের সাথে টুপটাপ শিশিরের
শব্দ, পাখির কলরবে প্রতিদিন
ভেঙ্গে পড়ে শুমশাম ভোরের নিভৃতি।
বাতাসে দীঘির কোমল গন্ধ জলের
ফুল ফোটার শব্দের মতো মৃদু- এখনও বুকের ভেতর
ছলকে ওঠে মধ্যাহ্নের একটি ঘুঘুর ডাক।
গোধূলির রঙ মাখা পালের নাও
তাল-তামাল হিজলের ছায়া কাঁপে
তারপর নদী আর বুনো জোছনায়
ভাসে আমার গ্রাম
জানি আমি ফিরবো না
তবুও অক্লান্ত হাঁটি নিজের ভেতর।

শহর থেকে ঘওে ফেরা একটি মেয়ে-
অনেক চিঠির মাঝে এ খনো খোঁজে
নীল খামে একটি নীল পাতার চিঠি,
অপেক্ষায় পাষাণ প্রহর কাটে না আর

কেন আসে না সেই নীল চিঠি…
কেন আসে না
তারপর শূন্যতার খোলস ভেঙে একদিন
সে মেয়েটি পাখি হয়ে যায়
উড়তে থাকে স্বপ্ন ঘেরা বনের সবুজ ঘিরে
দৃষ্টি স্পর্শের বাইরে দিয়ে- মেঘের দেশ ছুঁয়ে,
কতজন গড়ায়- অনিঃশেষ জলের প্লাবনে
ভাসে গ্রামে-
মাঝখানে এক কুটিল চোখ এখনও
থাকে জল্লাদের মত পাহারায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.