Home শীর্ষ সংবাদ দেশের ব্যাংকিং খাতের অবস্থা বর্তমানে ভালো নেই: বিজিএমইএ সভাপতি

দেশের ব্যাংকিং খাতের অবস্থা বর্তমানে ভালো নেই: বিজিএমইএ সভাপতি

0

দেশের ব্যাংকিং খাতের অবস্থা বর্তমানে ভালো নয় বলে মন্তব্য করেছেন তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান। একই সঙ্গে তিনি মনে করেন, তারল্যঘাটতি দূর করতে ব্যাংকে অর্থ দিলে দুর্নীতিকেই উৎসাহ দেওয়া হবে।

গতকাল সোমবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বিজিএমইএ ভবনের নূরুল কাদের মিলনায়তনে ‘বিজিএমইএ-বিইউএফটি জার্নালিজম ফেলোশিপ-২০১৭’ অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা জানি অনেক ব্যাংকের অবস্থাই খুবই খারাপ। একটি ব্যাংক দুর্নীতি করে টাকা নিল। তাকে আবার ৬০০ কোটি টাকা দিলেন। তার মানে কী? আপনি দুর্নীতি করার জন্য আর ১০টি ব্যাংককে উৎসহিত করছেন? এটা তো কোন অবস্থায় উচিত না।

বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষের প্রতি প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ব্যাংকে যারা দুর্নীতি করছে তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকে কী পদক্ষেপ নিয়েছে। এসময় উদাহরণ দিয়ে বলেন,‘আমি যদি চুরি করি, আজকে আমাকে আবার ১০০ কোটি টাকা দিবেন। এই চুরিকে জায়েয করার জন্য।’

প্রধান অতিথি শিল্পমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘ব্যাংকিং সেক্টরকে আরও আইনের আওতায় আনার জন্য অনুরোধ করছি। এইভাবে একজন আরেকজনের উপর আরেকজন দোষ চালিয়ে দেবেন না। আমি আশা করি পরবর্তী মিটিংয়ে এটা আপনি উঠাবেন। ব্যাংক নিয়ে কথা বলুন। ব্যাংকের অবস্থা ভালো না। আমরা নিজেরাও বুঝি আমরা ব্যাবসা করি।’

বিজিএমইএর সভাপতি বলেন, একটি ব্যাংকে ৬০০ কোটি টাকা দিলেন। তারা দুর্নীতি করে টাকা নিল। আবার ৬০০ কোটি দিলেন। এটা না করে ওই ব্যাংকের উচিত অন্য ব্যাংকের সঙ্গে মার্জ (একীভূত)করে দেয়া। যারা ব্যাংকের পরিচালক (দুর্নীতিবাজ) আছে, তাদের বাদ দিয়ে দেন। এইভাবে অন্যায়কে প্রশ্রয় না দিয়ে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহণ করুন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে কোন বক্তব্য দেননি। তিনি বলেন, দেশের মোট রপ্তানি আয়ের ৮০ শতাংশ আসে তৈরি পোশাক খাত থেকে। চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসে এ খাতে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৮ দশমিক ৬৮ শতাংশ। এই চিত্র প্রমাণ করে, বহির্বিশ্বে স্বার্থান্বেষী মহলের নেতিবাচক প্রচারণা সত্ত্বেও বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি বাড়ছে।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, এ শিল্পের কারখানার নিরাপত্তা ও কর্মপরিবেশ উন্নয়ন, শ্রমিকদের নিরাপত্তা জোরদার, ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ, কারখানা পরিদর্শন জোরদার করাসহ নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মঈনউদ্দিন আহমেদ (মিন্টু), সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারুক হাসান, সহ-সভাপতি (অর্থ)  মোহাম্মদ নাছির, বিইউএফটি’র উপাচার্য অধ্যাপক ড. নিজামুদ্দিন আহমেদ এবং বিজিএমইএ বিইউএফটি জার্নালিজম ফেলেশিপের তিন জন মেন্টর, একুশে টিভির সিইও এবং প্রধান সম্পাদক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার সম্পাদক শ্যামল দত্ত, গাজী টিভির প্রধান সম্পাদক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা।

প্রসঙ্গত, ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ (মোট বিতরণ করা ঋণের) ১০ শতাংশের বেশি। এ অবস্থায় বেসরকারি ব্যাংকগুলোর জন্য দুটি ছাড় দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর একটি হলে বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা রাখা বেসরকারি ব্যাংকগুলোর নগদ জমা সংরক্ষণ (ক্যাশ রিজার্ভ রেশিও বা সিআরআর) এক শতাংশ কমানো এবং সরকারি আমানতের ৫০ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকে রাখা যা আগে ছিল ২৫ শতাংশ। গত রোববার একটি হোটেলে বাংলাদেশ ব্যাংক ও ব্যাংক মালিকদের সংগঠন (বিএবি)-র  বৈঠকের পর সাংবাদিকদের বৈঠক থেকে বের হয়ে এ কথা জানান অর্থমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.